দেশে-বিদেশে কর্মসংস্থান বাড়াতে বাজেটে বেশ কিছু নতুন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। দক্ষ জনবল তৈরিতে কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষার জন্য ৯ হাজার ১৫৪ কোটি টাকা বরাদ্দ প্রস্তাব করা হয়েছে। চলতি অর্থবছরে এ খাতে বরাদ্দ ছিল আট হাজার ৩৪৫ কোটি টাকা।

বৃহস্পতিবার বাজেট বক্তৃতায় এ কথা জানান অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তিনি বলেছেন, সরকার দেশে বিষয়ভিত্তিক কর্মসংস্থানের নীতি গ্রহণ করেছে। এর আওতায় কর্মসংস্থানের প্রয়োজনীয়তা বিবেচনায় শিক্ষা কার্যক্রমের বিষয়বস্তু সংশোধন ও পুনর্বিন্যাস করে শিক্ষার সঙ্গে শিল্পের যোগসূত্র স্থাপন করা হচ্ছে। তথ্যপ্রযুক্তি (আইটি) খাতে এরই মধ্যে ১০ লাখ তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থান নিশ্চিত করা হয়েছে। ২০২১ সালের মধ্যে আরও ১০ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান হবে।

অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, চলমান চতুর্থ শিল্প বিপ্লব দেশে-বিদেশে দক্ষ জনশক্তির জন্য নতুন নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ উন্মোচন করেছে। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়ন কার্যক্রম দেশে বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ও কারিগরি জ্ঞানে পারদর্শী জনবলের বিপুল কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করেছে। সরকারের নীতি ও ফলদায়ী কর্মপরিকল্পনার ফলে দেশের তরুণ সমাজের একটি বড় অংশ ইতোমধ্যে আধুনিক ও প্রযুক্তিনির্ভর কর্মসংস্থানের সুবিধা ভোগ করছে।

বিদেশে কর্মসংস্থান সম্পর্কে অর্থমন্ত্রী বলেন, বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারি সত্ত্বেও গত বছর দুই লাখ ১৭ হাজার ৬৬৯ বাংলাদেশি কর্মীর বিদেশে কর্মসংস্থান হয়েছে।