ওষুধ ও রসায়ন খাতের কোম্পানি অ্যাকটিভ ফাইন এবং এএফসি এগ্রো বায়োটেকের নিট মুনাফা ব্যাপকভাবে কমেছে। 

চলতি হিসাব বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে অ্যাকটিভ ফাইনের নিট মুনাফা গত হিসাব বছরের একই সময়ের তুলনায় প্রায় ৭৫ শতাংশ এবং এএফসি এগ্রো বায়োটেকের প্রায় ৮৮ শতাংশ কমেছে।

মঙ্গলবার বিকালে উভয় কোম্পানির পর্ষদ সভায় তৃতীয় প্রান্তিকে আর্থিক প্রতিবেদন গ্রহণ করা হয়।সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য মিলেছে।

অ্যাকটিভ ফাইন: প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, হিসাব বছরের প্রথম নয় মাসে অ্যাকটিভ ফাইনের নিট মুনাফা হয়েছে ৫ কোটি ৬৩ লাখ টাকা, যা গত বছরে ছিল ২৩ কোটি ০৫ লাখ টাকা।

গত জানুয়ারি থেকে মার্চ সময়কালে অ্যাকটিভ ফাইন কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) অর্জিত হয়েছে মাত্র ২ পয়সা, যা গত হিসাব বছরের একই সময়ে ছিল ১৯ পয়সা।

এছাড়া হিসাব বছরের প্রথম নয় মাসে অর্থাৎ জুন’ ২০ থেকে মার্চ’ ২১ পর্যন্ত সময়কালে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১৭ পয়সা, যা গত বছরের একই সময়ে ছিল ৯৬ পয়সা।

কোম্পানি সূত্রে আরো জানা গেছে, হিসাব বছরের (২০২০-২১) নয় মাসে শেয়ার প্রতি ক্যাশ ফ্লো হয়েছে (-) ০১ পয়সা, যা গত হিসাব বছরে (২০১৯-২০) ছিল ২ টাকা। 

গত ৩১ মার্চ ২০২১ প্রান্তিক শেষে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ২২ টাকা ০২ পয়সা।

এএফসি এগ্রো বায়োটেক: হিসাব বছরের প্রথম নয় মাসে এএফসি এগ্রো বায়োটেকের নিট মুনাফা হয়েছে ১ কোটি ৪০ লাখ টাকা, যা গত বছরে ছিল ১১ কোটি ৬৩ লাখ টাকা।

গত জানুয়ারি থেকে মার্চ সময়কালে অ্যাকটিভ ফাইন কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) অর্জিত হয়েছে মাত্র ৩ পয়সা, যা গত হিসাব বছরের একই সময়ে ছিল ২০ পয়সা।

এছাড়া হিসাব বছরের প্রথম নয় মাসে অর্থাৎ জুন’ ২০ থেকে মার্চ’ ২১ পর্যন্ত সময়কালে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১২ পয়সা, যা গত বছরের একই সময়ে ছিল ১ টাকা ০১ পয়সা।

হিসাব বছরের (২০২০-২১) নয় মাসে শেয়ার প্রতি ক্যাশ ফ্লো হয়েছে ৪৩ পয়সা, যা গত হিসাব বছরে (২০১৯-২০) ছিল ২ টাকা ২০ পয়সা। গত ৩১ মার্চ ২০২১ প্রান্তিক শেষে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১৭ টাকা ৯৭ পয়সা। 


মন্তব্য করুন