নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত হাসেম ফুড কারখানা আবারও চালু করার দাবি জানিয়েছেন শ্রমিকরা। মঙ্গলবার বিকেলে কর্ণগোপ এলাকায় কারখানার সামনে অবস্থান নিয়ে শ্রমিকরা এ দাবি জানান। ঘটনার সঠিক তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত দোষীদের শাস্তিরও দাবি জানিয়েছেন তারা। 

এদিকে কারখানার শ্রমিকদের জুন মাসের বেতন দেওয়া হয়েছে। ১৫ জুলাই ওভারটাইম ও ১৬ জুলাই ঈদ বোনাস দেওয়ার কথাও জানান প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা। বেতন দেওয়ার খবরে এদিন সকাল থেকেই কারখানার সামনে ভিড় জমান শ্রমিকরা। সাইদ মিয়া নামে এক শ্রমিক বলেন, গত সোমবার রাতে কারখানার এক বড় ভাইয়ের কাছ থেকে বেতন দেওয়া হবে জানতে পেরেছেন তিনি।

শ্রমিকরা জানান, ছয় থেকে সাত হাজার শ্রমিক-কর্মচারী এখানে চাকরি করেন। ১৫ দিন আগে বকেয়া বেতন-ভাতা ও ওভারটাইমের দাবিতে কারখানার শ্রমিকরা ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন। উত্তেজিত শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করে যানচলাচল বন্ধ করে দেন। পরে প্রশাসনের সহযোগিতায় কারখানা কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের দাবি করা বেতন-ভাতা ও ওভারটাইম পরিশোধ করার আশ্বাস দিলে শ্রমিকরা শান্ত হন। এর এক সপ্তাহ পরই কারখানার ৬ তলার একটি ভবনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড ঘটে। এতে ৫২ জন নিহত হন। শ্রমিকরা বলেন, ঈদ সামনে রেখে কারখানা বন্ধ থাকায় তারা চিন্তিত হয়ে পড়েছেন। কারখানা চালু না হলে কয়েক হাজার শ্রমিক বেকার হয়ে পড়বেন। নিহতদের শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন তারা।

কারখানার ম্যানেজার (ভ্যাট) নুরুজ্জামান বলেন, দুই হাজার শ্রমিকের বকেয়া বেতন-ভাতা পরিশোধ করা হয়েছে। শ্রমিকদের খোজখবর রাখছেন তিনি। আহত শ্রমিকদের চিকিৎসা ব্যয়সহ আর্থিক সহযোগিতা করতে রাজি কারখানা কর্তৃপক্ষ।

গত বৃহস্পতিবার বিকেলে সজিব গ্রুপের হাসেম ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেড কারখানার ভবনে অগ্নিকাণ্ড ঘটে। শুক্রবার দুপুরের পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।