কোনো সারচার্জ ছাড়াই আমদানি ও রপ্তানি প্রধান নিয়ন্ত্রকের দপ্তরের (সিসিআইই) সকল প্রকার নিবন্ধন সনদ নবায়ন করা যাবে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। সম্প্রতি আমদানি রপ্তানি প্রধান নিয়ন্ত্রকের দপ্তর থেকে জারি করা এক নির্দেশনায় এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এ দপ্তরের আমদানি, রপ্তানি ও ইন্ডেন্টিং সংক্রান্ত সংক্রান্ত লাইসেন্স দিয়ে থাকে। ইন্ডেন্টর হলেন এমন একজন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান যিনি অন্য দেশের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানের দেশীয় এজেন্ট হিসেবে কাজ করেন। বিদেশী পণ্য আমদানি এবং বিক্রির মধ্যে দিয়ে তারা কমিশন লাভ করেন এবং সরকারকে নির্দিষ্ট কর প্রদান করেন।

নির্দেশনায় জানানো হয়েছে, এ দপ্তরের অনলাইন লাইসেন্সিং মডিউলের মাধ্যমে সকল প্রকার সনদ নেওয়া ও নবায়নের আবেদন করা যাচ্ছে। একইসঙ্গে যাদের লাইসেন্সের মেয়াদ শেষ হয়েছে, তারা চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরের জন্য নবায়নের আবেদন করে থাকলে ব্যবসা পরিচালনা অর্থাৎ আমদানি ও রপ্তানির এলসি খোলা এবং ইন্ডেন্টিং কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবেন। 

তবে সেজন্য আবেদন ফিস ও ভ্যাট পরিশোধের প্রমাণপত্র (ট্রেজারি চালান বা ই-চালান) দাখিল করতে হবে। 

ওই নির্দেশনায় আরও বলা হয়েছে, ইতোমধ্যে যেসব আমদানিকারক, রপ্তানিকারক ও ইন্ডেন্টররা লাইসেন্স নবায়নের জন্য আবেদন করেছেন, তাদের আবেদন নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত বা লাইসেন্স নবায়ন না হওয়া পর্যন্ত ২০২১-২২ অর্থ বছরের নবায়ন ফিস ও ভ্যাট দেওয়ার ট্রেজারি চালান বা ই-চালান দাখিল করে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ব্যবসায়িক কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে পারবেন। 

ব্যাংকগুলো যাতে এই চালান দেখে আমদানি, রপ্তানিকারক ও ইন্ডেন্টরদের কার্যক্রমে সহায়তা করে সেজন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংককে চিঠিও পাঠিয়েছে আমদানি রপ্তানি প্রধান নিয়ন্ত্রকের দপ্তর। 

তার পরিপ্রেক্ষিতে গত সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংক এক সার্কুলার জারি করে দেশের সব ব্যাংককে এ ধরনের সুবিধা দেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছে।