দেশব্যাপী ডিজিটাল ক্যাম্পেইন চালাচ্ছে বাংলাদেশি মাল্টিন্যাশনাল ব্র্যান্ড ওয়ালটন।  সেই ক্যাম্পেইনের আওতায় ওয়ালটনের রেফ্রিজারেটর কিনে ১০ লাখ টাকা করে পেয়েছেন তিন ক্রেতা। 

তারা হলেন কুষ্টিয়ার কৃষক কামাল আলী, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার স্কুল শিক্ষক মুনির হোসেন এবং নোয়াখালীর দর্জি মাসুদুর রহমান। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে লাখপতি হলেন ৬ ক্রেতা।

এর আগে ওয়ালটন ফ্র্রিজ কিনে ১০ লাখ টাকা করে পান নারায়ণগঞ্জের পোশাক শ্রমিক সেলিম মিয়া, নীলফামারীর মুদি দোকানদার মাজেদুল ইসলাম এবং রাজবাড়ির দর্জি হানিফ সরদার।

কোরবানি ঈদ উপলক্ষে ওয়ালটনে চলছে ‘মেগা ঈদ ফেস্টিভ্যাল’। প্রতিষ্ঠানটির ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-১১ এর আওতায় এ ফেস্টিভ্যালে ওয়ালটন ফ্রিজ, টিভি, এসি, ওয়াশিং মেশিন, ফ্যান, গ্যাস স্টোভ ও রাইস কুকার ক্রেতাদের জন্য থাকছে আকর্ষণীয় সব সুবিধা। এর মধ্যে রয়েছে ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে লাখপতি হওয়ার সুযোগ। 

এছাড়াও পণ্যভেদে আছে ফ্রি ফ্রিজ, এসি, ওয়াশিং মেশিন, কোটি কোটি টাকার নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচারসহ অসংখ্য সুবিধা। এর পাশাপাশি যেকোনো ব্র্যান্ডের পুরনো ফ্রিজ বদলে বিশেষ ছাড়ে ওয়ালটনের নতুন ডিপ ফ্রিজ কেনার সুবিধা পাচ্ছেন গ্রাহক।

গত ১৮ জুলাই চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গায় ওয়ালটনের শোরুম ‘মোল্লা ইলেকট্রনিক্স’-এ ক্রেতা কামাল আলীর হাতে ১০ লাখ টাকার চেক তুলে দেওয়া হয়। 

১৬ জুলাই ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের টি.এ রোডের ওয়ালটন প্লাজায় ক্রেতা মুনির হোসেনের হাতে ১০ লাখ টাকার চেক তুলে দেয়া হয়। একই দিনে নোয়াখালীর বসুরহাটের কলেজ রোডে ওয়ালটনের শোরুম ‘মেসার্স হাজি এন্টারপ্রাইজ ও ইলেকট্রনিক্স’ থেকে ১০ লাখ টাকার চেক গ্রহণ করেন মাসুদুর রহমান। 

কামাল আলী জানান, সম্প্রতি মোল্লা শোরুম থেকে ২৮ হাজার ৫০০ টাকা দিয়ে ৩৩২ লিটারের একটি ওয়ালটন ফ্রিজ কেনেন। ফ্রিজ কেনার পর ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন করলে ১০ লাখ টাকা পাওয়ার মেসেজ যায় তার মোবাইলে। 

কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার আমবাড়ি গ্রামের কৃষক কামাল ওই টাকায় একটি বাড়ি বানাবেন বলে জানিয়েছেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পৌর আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মুনির হোসেন। 

তিনি জানান, পরিবারের জন্য কিস্তি সুবিধায় ৬৯ হাজার ৯০০ টাকা দামের ৫৬৩ লিটারের একটি ওয়ালটন ফ্রিজ কিনলে ১০ লাখ টাকা পাওয়ার মেসেজ পান। ওই টাকা ভবিষ্যতের জন্য সঞ্চয় করবেন মুনির।

ওয়ালটন জানিয়েছে,  ওয়ালটনের প্রায় ২০০ মডেলের রেফ্রিজারেটর, ফ্রিজার ও বেভারেজ কুলার বর্তমানে বাজারে রয়েছে। 

ঈদুল আযহা উপলক্ষে ২৭টি নতুন মডেলের ফ্রিজ উন্মোচন করেছে ওয়ালটন। একইসঙ্গে ডিজাইন ও ফিচার আপডেট করা আরও অর্ধশতাধিক মডেলের ফ্রিজ আনুষ্ঠানিকভাবে বাজারে ছেড়েছে তারা।ফ্রিজে ১ বছরের রিপ্লেসমেন্টসহ কম্প্রেসরে ১২ বছরের ওয়ারেন্টি দিচ্ছে ওয়ালটন। দ্রুত ও সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা দিতে আইএসও সনদপ্রাপ্ত সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের আওতায় সারা দেশে ওয়ালটনের রয়েছে ৭৬টি সার্ভিস সেন্টার।


বিষয় : ওয়ালটন রেফ্রিজারেটর কুলার

মন্তব্য করুন