ডাক বিভাগের মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস ‘নগদ’ অপর একটি রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান জীবন বীমা করপোরেশনের সঙ্গে চুক্তি করেছে। এখন থেকে নগদের গ্রাহকেরা জীবন বীমা করপোরেশনের প্রিমিয়াম নগদের মাধ্যমে প্রদান করতে পারবেন।

নগদ গ্রাহকেরা দেশের যে কোনো জায়গায় বসে, যে কোনো সময় এখন থেকে জীবন বীমা করপোরেশনের প্রিমিয়াম জমা দিতে পারবেন। এর ফলে গ্রাহকদের টাকা, শ্রম এবং সময় বেঁচে যাবে। করোনা মহামারির এই সময়ে এমন ধরনের চুক্তির ফলে গ্রাহকেরা ঝুঁকিমুক্ত লেনদেন করতে পারবেন এবং লাভবান হবেন। 

নগদ  এবং জীবন বীমা করপোরেশনের মধ্যে এ বিষয়ে একটি চুক্তি সম্প্রতি ঢাকায় জীবন বীমা করপোরেশনের প্রধান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। এতে  জীবন বীমা করপোরেশনের চেয়ারম্যান মো. মাকসুদুল হাসান খান প্রধান অতিথি ছিলেন। প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. জহুরুল হক এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

নগদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) রাহেল আহমেদ এবং জীবন বীমা করপোরেশনের মহাব্যবস্থাপক (অর্থ ও হিসাব) সেখ কামাল হোসেন তাদের নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে সই করেন।

নগদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) রাহেল আহমেদ এ সময় বলেন, দুই বছর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশের বিপ্লব হিসেবে যাত্রা শুরু করে নগদ। দেশের নেতৃস্থানীয় একটি বীমা কোম্পানির সঙ্গে থাকতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দ বোধ করছি। এখন থেকে আমাদের গ্রাহকেরা যে কোনো সময় কোনো ধরনের ঝামেলা ছাড়াই তাদের প্রিমিয়াম জমা দিতে পারবেন।

তিনি আরও বলেন, যদিও দেশের মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস এক দশক আগে শুরু হয়েছে, কিন্তু বিভিন্ন উদ্ভাবনী সমাধানের মাধ্যমে অত্যন্ত স্বল্প সময়ের মধ্যে দৈনিক ৭০০ কোটি টাকা লেনদেনের সঙ্গে পাঁচ কোটি গ্রাহক অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে নগদ। ডিজিটাল কেওয়াইসি-এর মতো বৈপ্লবিক সমাধান নিয়ে আসার মাধ্যমে আমরা নতুন গ্রাহক নিবন্ধনের ক্ষেত্রে হয়রানি কমিয়ে এনে দেশের মানুষকে আর্থিক অন্তর্ভুক্তিতে আনতে পেরেছি।

জীবন বীমা করপোরেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. জহুরুল হক রাষ্ট্রীয় মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসের সঙ্গে এমন চুক্তির বিষয়কে মাইলফলক হিসেবে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, আমরা আশা করি আমাদের ৭০০ কোটি টাকা প্রিমিয়াম আদায়ের বেশিরভাগই আসবে নগদের মাধ্যমে। যেহেতু আমরা উভয়ই রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান, এর মাধ্যমে দিনশেষে সরকার ও দেশের জনগণ উপকৃত হবে।

নগদের মতো আরও ডিজিটাল উদ্ভাবন আনার ওপর জোর দিয়ে জীবন বীমা করপোরেশনের চেয়ারম্যান মো. মাকসুদুল হাসান খান বলেন, এমন উদ্ভাবন এটাই প্রমাণ করে যে সরকারের ভিশন ডিজিটাল বাংলাদেশের যুগ আমরা পেরিয়ে এসেছি। এখন আরও উদ্ভাবন আসা উচিত এবং এমন ধরনের চুক্তি আরও বেশি প্রচার পাওয়া উচিত।

নগদের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা (সিএমও) শেখ আমিনুর রহমান, প্রধান বিক্রয় কর্মকর্তা (সিএসও) মো. শিহাব উদ্দিন চৌধুরী, জীবন বীমা করপোরেশনের মহাব্যবস্থাপক (উন্নয়ন ও তথ্যপ্রযুক্তি) এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে নগদ  ও মেটলাইফ ইনসিওরেন্সের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এরপর মেটলাইফসহ অন্তত ২৭টি বীমা প্রতিষ্ঠানের প্রিমিয়াম এখন নগদের মাধ্যমে প্রদান করা যায়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি