ওয়ালটন এয়ার কন্ডিশনার নিয়ে স্লোগান বা ট্যাগলাইন লিখে ফ্রি এসি, মাইক্রোওয়েভ ওভেন ও ব্লেন্ডার জিতেছেন তিনজন। ওয়ালটনের ‘ক্রিয়েটিভিটি চ্যালেঞ্জ সিজন-১’ শীর্ষক ক্যাম্পেইনে ওই পুরস্কার পেয়েছেন ঢাকার মিরপুরের অজুফা আক্তার, চট্টগ্রামের সালমান রহমান এবং নোয়াখালীর জিকো রড্রিক্স।

সম্প্রতি শেষ হওয়া এই ক্যাম্পেইনে ২ হাজারের বেশি মানুষ অংশ নেন। আর সেখান থেকে সেরা ৩টি ট্যাগলাইন বা স্লোগান বাছাই করা হয়। সেরা ট্যাগলাইনার হিসেবে অজুফা লিখেন, ‘ওয়ালটন স্মার্ট এসি, খরচ কম ঠাণ্ডা বেশি।’ সালমান লিখেন, ‘গরম যখন চরমে, ওয়ালটন এসি নিয়ে থাকুন আরামে।’ অন্যদিকে জিকোর ট্যাগলাইন হলো, ‘অস্থির গরমে স্বস্তির ছোঁয়া।’

গত মঙ্গলবার পুরস্কারপ্রাপ্তদের কাছে এই উপহার হস্তান্তর করা হয়। ওয়ালটন থেকে পাওয়া এসিটি অজুফা আক্তারের বাসায় বিনামূল্যে ইনস্টল করে দেয়া হয়। 

প্রতিযোগিতায় বিচারকমণ্ডলীর মধ্যে ছিলেন ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর হুমায়ূন কবীর, ওয়ালটন এসির চিফ বিজনেস অফিসার (সিবিও) তানভীর রহমান, সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর ফিরোজ আলম ও আমিন খান।

ওয়ালটন এসির ব্র্যান্ড ম্যানেজার খলিলুর রহমান জানান, ক্যাম্পেইনে অংশগ্রহণকারীরা তাদের ট্যাগলাইন গুলো গুগল ফর্মের মাধ্যমে, ওয়ালটন এসির ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজ-এ কমেন্ট এবং মেসেজের মাধ্যমে জমা দেন। একই ট্যাগলাইনের জন্য একাধিক অংশগ্রহণকারীর ক্ষেত্রে প্রথম জমা প্রদানকারি প্রাধান্য পেয়েছেন। ক্যাম্পেইনটি চলে ৩১ মে ২০২১ পর্যন্ত। ব্যাপক সাড়া পাওয়ায় শিগগিরই ‘ক্রিয়েটিভিটি চ্যালেঞ্জ সিজন-২’ শুরু করতে যাচ্ছে ওয়ালটন। 

পুরস্কার পাওয়ার অনুভূতি জানিয়ে অজুফা আক্তার বলেন, সোস্যাল মিডিয়ায় বিষয়টি চোখের সামনে আসে। তখনই লিখে ফেললাম ট্যাগলাইনটা। আমি ভুলে গিয়েছিলাম ওয়ালটনের এমন একটি ক্যাম্পেইনে অংশ নিয়েছি। হঠাৎ ওয়ালটনের পক্ষ থেকে জানানো হলো আমি প্রথম হয়েছি এবং পুরস্কার হিসেবে একটি এসি পেয়েছি।  আমি সত্যিই সারপ্রাইজড।

জিকো রড্রিক্স বলেন, জীবনে এই প্রথম কোনো পুরস্কার পেলাম। ফেসবুকে চোখ বোলাতে গিয়ে ওয়ালটনের ট্যাগলাইন লেখা সংক্রান্ত বিষয়টি সামনে আসে। বিষয়টা আমার কাছে দারুণ লেগেছে।

এসি ক্রেতাদের নানান সুবিধা দিচ্ছে ওয়ালটন। ‘এসি এক্সচেঞ্জ অফার’ এর আওতায় যেকোনো ব্র্যান্ডের পুরনো এসি জমা দিয়ে গ্রাহক যেকোন ওয়ালটন এসির মূল্য থেকে ২৫ শতাংশ ছাড় পাবেন। 

ওয়ালটনের ইনভার্না এসির ইকো-মুডে প্রতি ঘণ্টায় বিদ্যুৎ খরচ পড়ছে মাত্র ২ টাকা ৮৮ পয়সা। এসিতে এক বছরের রিপ্লেসমেন্টের পাশাপাশি কম্প্রেসরে থাকছে ১০ বছরের গ্যারান্টি। এছাড়া ওয়ালটনের দক্ষ ও অভিজ্ঞ প্রকৌশলী এবং টেকনিশিয়ান ও সার্ভিস এক্সপার্টগণ প্রতি ১০০ দিন পর পর এসির ক্রেতাদের ফ্রি সার্ভিস দেয়া হচ্ছে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি