বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, সারাদেশে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন চলছে। পরীক্ষিত নেতা-কর্মীরাই নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পাবেন। এরপর যদি কেউ ব্যক্তিগত স্বার্থে দলের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে গিয়ে বিদ্রোহী বা স্বতন্ত্র প্রার্থী হন তাহলে তার বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

রোববার দুপুরে কৃষিমন্ত্রী টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে স্থানীয় নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, নৌকা অত্যন্ত গর্বের, অহংকারের ও বাংলাদেশের স্বাধীনতার প্রতীক। এটি পেতে হলে প্রার্থীকে নৈতিক শক্তির অধিকারী, দলের আদর্শের প্রতি অনুগত, ত্যাগী ও দীর্ঘদিনের পরিক্ষীত নেতাকর্মী হতে হবে। মৌসুমি পাখির মত দলে হঠাৎ করে এসেই কেউ মনোনয়ন পাবেন না। একজন প্রার্থীর জনপ্রিয়তা, তৃণমূলের সিদ্ধান্তসহ নানা দিক বিবেচনা করেই প্রার্থী মনোনয়ন করা হবে।

স্থানীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, তৃণমূলের কর্মীদের ঐক্যই দলের সবচেয়ে বড় শক্তি। দলের গঠনতন্ত্র ও আইন মেনে তাদেরকে শৃঙ্খলা ও ঐক্য বজায় রাখতে হবে।

ধনবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মীর ফারুক আহমাদ ফরিদের সঞ্চালনায় উপজেলা আওয়ামলী লীগের সহ-সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হারুনার রশীদ হীরার সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য দেন ধনবাড়ী পৌর সভার সাবেক মেয়র খন্দকার মঞ্জুরুল ইসলাম তপন, উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ইকবাল হোসেন তালুকদার, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. সাখাওয়াত হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন কালু প্রমূখ। এ সময় উপজেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।