সরকারি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ২১ মহাব্যবস্থাপককে পদোন্নতি দিয়ে উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক (ডিএডি) করা হয়েছে। এর মধ্যে সর্বোচ্চ সংখ্যাক ৮ জন ডিএমডি হয়েছেন রাষ্ট্রীয় মালিকানার রূপালী ব্যাংকের, দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৬ জন পদোন্নতি পেয়েছেন জনতা ব্যাংকের। 

এছাড়া অগ্রণী, কৃষি ও বেসিক ব্যাংকের দুইজন করে এবং হাউজ বিল্ডিং ফাইন্যান্স কর্পোরেশনের একজন ডিএমডি হয়েছেন। সোমবার এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন অর্থ মন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়।

পদোন্নতি পাওয়ার তালিকায় থাকা রূপালী ব্যাংকের ৮ জন হলেন- মো. মজিবর রহমান, বেগম সঞ্চিয়া বিনতে আলী, মো. আ. রহিম, ওয়াহিদা বেগম, মো. শওকত আলী খান, খান ইকবাল হোসেন, শচীন্দ্র নাথ সমাদ্দার ও বেগম সালমা বানু। জনতা ব্যাংকের ৬ জন হলেন- মো. শহীদুল ইসলাম, মো. কামরুজ্জামান খান, মো. মাহবুবর রহমান, মো. আসাদুজ্জামান, মো. হাবিবুর রহমান গাজী ও মো. কামরুল আহছান। 

এছাড়া অগ্রণী ব্যাংকের মো. আনোয়ারুল ইসলাম ও মো. মনিরুল ইসলাম। বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের চানু গোপাল ঘোষ ও মীর মোফাজ্জল হোসেন। বেসিক ব্যাংকের নিরঞ্জন চন্দ্র দেবনাথ ও আবু মো. মোফাজ্জেল। আর বাংলাদেশ হাউজ বিল্ডিং ফাইন্যান্স কর্পোরেশনের অরুন কুমার চৌধুরী।

রাষ্ট্র মালিকাধীন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের এমডি, ডিএমডি ও মহাব্যবস্থাপক নিয়োগ, পদোন্নতি ও পদায়ন নীতিমালা-২০১৯ এর আওতায় এসব কর্মকর্তাকে পদোন্নতি দেওয়া হয়েছে। পদোন্নতি দিয়ে নিজ ব্যাংক ও সরকারি অন্য ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে পদায়ন করা হয়েছে। ডিএমডি পদোন্নতির ফলে সরকারি ব্যাংকগুলোতে সমসংখ্যক মহাব্যবস্থাপকসহ নিম্নতর পদ সৃষ্টি হলো।