বাংলাদেশে নতুন উদ্যোক্তা তৈরিতে সহযোগিতা দেবে দক্ষিণ কোরিয়া। এ বিষয়ে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাদানের উদ্দেশ্যে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের শিক্ষা কার্যক্রম উন্নয়ন, কর্মকৌশল নির্ধারণসহ প্রয়োজনীয় সব সহযোগিতা দেওয়া হবে। টেকসই ব্যবসা উদ্যোগ এবং নতুন উদ্যোক্তা তৈরিতে কোরিয়ার অভিজ্ঞতাও কাজে লাগোনো হবে এতে। পাইলট পর্যায়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এই কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে। পর্যায়ক্রমে দেশের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়েও এই কার্যক্রম চালু করা হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনোভেশন, ক্রিয়েটিভিটি অ্যান্ড এন্টারপ্রেনিউরশিপ (আইসিই) সেন্টার এ নিয়ে কাজ করছে।

গতকাল মঙ্গলবার বাংলাদেশ এবং কোরিয়ার প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে অনুষ্ঠিত এক পরামর্শ সভায় এই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়। যুব উদ্যোক্তা তৈরি সংক্রান্ত বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর সক্ষমতা বৃদ্ধিতে দু'দেশের সরকারের মধ্যকার চুক্তির অংশ হিসেবে এই আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। দু'দেশের বিভিন্ন শ্রেণির পরামর্শকরা আলোচনায় অংশ নেন।

আলোচনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপচার্য এবং আইসিই সেন্টারের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আখতারুজ্জামান বলেন, সৃজনশীল উদ্যোক্তা তৈরির মাধ্যমে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে গুরুত্বপুর্ণ ভূমিকা রাখবে যৌথ এই উদ্যোগ। পাশাপাশি বৈশ্বিক অংশীদারিত্বের ক্ষেত্রে দু'দেশের মধ্যকার সহযোগিতার ক্ষেত্র তৈরি হবে। আলোচনায় কোরিয়া কো-অপারেশন ইন্টারন্যাশনাল এজেন্সির (কোইকা) বাংলাদেশের পরিচালক ইয়াং দো বলেন, বাংলাদেশের তরুণ উদ্যোক্তা শ্রেণির টেকসই বিকাশের ক্ষেত্রে সব ধরনের সহযোগিতা দিতে চায় তার দেশ। পরামর্শ সভার উদ্ভাবনী ধারণা,অভিজ্ঞতা বিনিময় ও সে অনুযায়ী কর্মপরিকল্পনা গ্রহণের মাধ্যমে এই কার্যক্রম এগিয়ে নেওয়া হবে।

সভায় আইসিআই সেন্টারের নির্বাহী পরিচালক এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক রাশেদুর রহমান কার্যক্রমের বিস্তারিত তুলে ধরেন। তিনি বলেন, দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে উদ্ভাবনের গুরুত্ব তুলে ধরা এবং সহযোগিতা দেওয়ার লক্ষ্যে কাজ করছে আইসিই সেন্টার। বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থী, শিক্ষকদের এই প্ল্যাটফর্ম বিগত দিনে বেশ কয়েকজন সৃজনশীল উদ্যোক্তা তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে।

অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন কোরিয়ার প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট কনসোর্টিয়ামের (পিএমসি) প্রকল্প পরিচালক ডেরিক কিম, উপদেষ্টা হেকিউং, বুয়েটের অধ্যাপক মুহাম্মদ আনিসুজ্জামান তালুকদার, আইসিই সেন্টারের ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. খন্দকার বজলুল হক, ইকোনোমিক রিপোর্টার্স ফোরামের (ইআরএফ) সাধারণ সম্পাদক এস এম রাশিদুল ইসলাম।

বিষয় : উদ্যোক্তা তৈরি কোরিয়ার অভিজ্ঞতা নতুন উদ্যোক্তা তৈরি

মন্তব্য করুন