ডিজেল ও কেরোসিনের সাম্প্রতিক মূল্যবৃদ্ধি দেশের অর্থনীতি ও জনজীবনে বড় আঘাত হানে। এর মধ্যেই আবার বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দাম বৃদ্ধির প্রক্রিয়া শুরু করেছে জ্বালানি বিভাগ। সরকারের ঊর্ধ্বতন মহলের পরামর্শে গ্যাস ও বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানিগুলোও দাম বাড়ানোর প্রস্তাব তৈরি করেছে। কয়েকটি কোম্পানি বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনে (বিইআরসি) প্রস্তাব জমাও দিয়েছে।

বলা হচ্ছে, 'ভর্তুকির চাপ' সামলাতে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সরকারের ভুল নীতি আর সংশ্নিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর অনিয়ম-দুর্নীতির কারণে ভর্তুকি দিতে হচ্ছে। জনগণকে সেই ভর্তুকির বোঝা টানতে হচ্ছে বছরের পর বছর।

আলোচনা করেছেন সমকালের স্টাফ রিপোর্টার হাসনাইন ইমতিয়াজ ও সহ-সম্পাদক রিফাত তাসনুভা