পটুয়াখালীর পায়রা বন্দরের কাছে একটি আন্তর্জাতিক মানের জাহাজ নির্মাণ কারখানা শিপইয়ার্ড নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এ প্রকল্পে যৌথভাবে প্রায় ১৪ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করেছে সিঙ্গাপুর ও অস্ট্রেলিয়াভিত্তিক প্রতিষ্ঠান জেন্টিয়াম সলিউশনস এবং ডাচ প্রতিষ্ঠান ডামেন শিপইয়ার্ডস গ্রুপ। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে বাংলাদেশে এটিই হবে একক কোনো প্রকল্পে সর্বোচ্চ বিদেশি বিনিয়োগ। প্রাথমিকভাবে সেখানে প্রায় দুই হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হবে।

শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে প্রস্তাব তুলে ধরেছেন বিনিয়োগকারীদের স্থানীয় প্রতিনিধিরা। প্রতিনিধি দলে ছিলেন জেন্টিয়াম সলিউশনসের উপদেষ্টা মো. কায়কোবাদ হোসেন এবং ডামেন গ্রুপের নেভাল প্রকল্পের সিনিয়র পরিচালক ইফ ভ্যান ডেন ব্রোয়েক ও ডামেন শিপইয়ার্ডসের এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের পরিচালক রাবিয়েন বাহাদুয়ের। গতকাল সোমবার শিল্প মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানায়। এর আগে যৌথভাবে এই প্রকল্পের সম্ভাব্যতা যাচাই করেছে শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ ইস্পাত ও প্রকৌশল করপোরেশন (বিএসইসি) এবং বিদেশি দুই প্রতিষ্ঠান জেন্টিয়াম ও ডামেন। সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের প্রতিবেদন শিল্পমন্ত্রীর কাছে উপস্থাপন করা হয়েছে।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ 'জাহাজ ক্রেতা জাতি' থেকে 'জাহাজ নির্মাণকারী জাতি' হতে চায়। প্রস্তাবিত প্রকল্পটি চূড়ান্ত হলে পায়রা বন্দর সংলগ্ন এলাকায় জমির ব্যবস্থা করা হবে। এ জন্য ১০১ একর জমির সংস্থান করে রাখা হয়েছে। পাশাপাশি সব ধরনের সহযোগিতা করবে সরকার।

২০১৪ সালে পটুয়াখালী সফরের সময় পায়রা বন্দরের নিকটবর্তী এলকায় একটি জাহাজ নির্মাণ কারখানা স্থাপনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। অগ্রাধিকার ভিত্তিতে এই প্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেয় শিল্প মন্ত্রণালয়। বিনিয়োগকারীদের পক্ষে স্থানীয় প্রতিনিধিরা জানান, প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে প্রথম পর্যায়ে আঞ্চলিক ও স্থানীয় প্রায় দুই হাজার লোকের কর্মসংস্থান হবে। জেন্টিয়াম-ডামেনের মতো বিশেষায়িত কোম্পানির সঙ্গে কাজ করে বাংলাদেশের শ্রমিকরা তাদের দক্ষতা বাড়ানোর সুযোগ পাবে। উন্নত বিশ্বের প্রযুক্তি আসবে বাংলাদেশে। এর মাধ্যমে দেশে ব্যবহার ও রপ্তানির জন্য উচ্চমানের জাহাজ নির্মাণের লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়ন সম্ভব হবে।