জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষকে স্মরণীয় করে রাখতে দেশে প্রথমবারের মতো গোল্ড ফেয়ারের আয়োজন হতে যাচ্ছে। বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির (বাজুস) সভাপতি সায়েম সোবহান আনভীর এ ঘোষণা দেন।

সম্প্রতি রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় বাজুস জেলা পর্যায়ের নেতাদের নিয়ে দুই দিনব্যাপী মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভার সমাপনী বক্তব্যে সায়েম সোবহান আনভীর জানান, স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিনের শুভক্ষণে বাজুস ফেয়ার-২০২২ উদ্বোধন করা হবে। রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় অনুষ্ঠিতব্য বাজুস ফেয়ারে দেশ-বিদেশের অনেক ক্রেতা-বিক্রেতা অংশ নেবেন বলে আশা করেন তারা।

বৈঠক সূত্র জানায়, বাজুস জেলা পর্যায়েরর নেতাদের নিয়ে দুদিনের বৈঠকে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ও অর্থবহ আলোচনা এবং সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় চলতি বছরের ১৭ মার্চ থেকে তিনদিনের বাজুস ফেয়ার আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেন বাজুস সভাপতি।

বৈঠকে সায়েম সোবহান আনভীর বলেন, জুয়েলারি খাতে ভ্যাটের সমস্যাসহ নানা সংকট বিদ্যমান। এসব সংকটের সমাধানে সারাদেশের জুয়েলারি ব্যবসায়ীদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার বিকল্প নেই। বাজুস ফেয়ার এই ব্যবসায়ীদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আরেকটি শক্তিশালী প্ল্যাটফর্ম হবে। সারাদেশের সব জুয়েলারি ব্যবসায়ীকে বাজুসের সদস্য হয়ে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান সায়েম সোবহান আনভীর।

বাজুসের সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের প্রতিশ্রুতি দিয়ে কাজ শুরু করেছেন সায়েম সোবহান। পাশাপাশি দেশেই স্বর্ণ পরিশোধন কারখানা স্থাপনের উদ্যোগ নিয়ে সাড়া ফেলে দিয়েছেন। দেশে স্বর্ণ পরিশোধন কারখানা স্থাপনের মধ্য দিয়ে নতুন যুগের সূচনা করার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। এর ফলে বিদেশে জুয়েলারি রপ্তানির মাধ্যমে অর্থনীতিতে জোরালো ভূমিকা রাখবেন।

এজন্য প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে সায়েম সোবহান বলেন, জুয়েলারি শিল্পের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের পাশে আছেন। আমার দৃঢ় বিশ্বাস জুয়েলারি পণ্য রপ্তানিতে প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়ীদের সর্বোচ্চ নীতি সহায়তা দেবেন। জুয়েলারি পণ্য রপ্তানি হলে ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি সমাজ, দেশ ও জাতি সারাবিশ্বে আরও সম্মানিত হয়ে উঠবেন।