ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসন বলেছেন, বিশ্বমানের পণ্য উৎপাদনে বাংলাদেশের সক্ষমতার অসাধারণ উদাহরণ ফেয়ার গ্রুপ। তাদের মাঝেই রয়েছে বাংলাদেশের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের প্রতিফলন।

বুধবার নরসিংদীর শিবপুরে ফেয়ার গ্রুপের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান ফেয়ার ইলেক্ট্রনিক্স লিমিটেডের ফ্যাক্টরি পরিদর্শন শেষে এ মন্তব্য করেন ব্রিটিশ হাইকমিশনার।

তিনি বলেন, আমি নিজে ঘুরে দেখেছি, ফেয়ার  ইলেক্ট্রনিক্স অসাধারণ উচ্চাভিলাষের বাস্তবায়ন ঘটিয়ে বাংলাদেশেই বিশ্বমানের পণ্য উৎপাদন করছে। এর মাধ্যমে তারা বাংলাদেশের ভবিষ্যতের ম্যানুফ্যাকচারিং খাতের প্রতিফলন ঘটিয়েছে। এটা সত্যিই অত্যন্ত  উৎসাহব্যঞ্জক ও প্রেরণা যোগানোর মতোন বিষয়।

এর আগে সকালে ফেয়ার ইলেক্ট্রনিক্স ফ্যাক্টরিতে পৌঁছলে ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসনকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান ফেয়ার গ্রুপের চেয়ারম্যান রুহুল আলম আল মাহবুব। এসময় ফেয়ার গ্রুপের পরিচালক মুতাসসিম দাইয়ান উপস্থিত ছিলেন।

বাংদেশের গার্মেন্টস খাতের সাফল্যকে অন্যান্য খাতে ছড়িয়ে  দেয়ার প্রয়োজনীয়তার উপর জোর দিয়ে রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসন বলেন, আমরা প্রায়ই বলে থাকি, বাংলাদেশের  ম্যানুফ্যাকচারিং খাতে বৈচিত্র্য আনা দরকার। ফেয়ার ইলেক্ট্রনিক্সের ফ্যাক্টরিতে সেটাই ঘটতে দেখলাম। ওরা প্রমাণ করে দিয়েছে যে এটা সম্ভব। আমি অত্যন্ত মুগ্ধ। ফেয়ার গ্রপের ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ, কর্মী বাহিনী এবং সংশ্লিষ্ট সবাই মিলে তা অর্জন করেছেন।

বৃটিশ হাই কমিশনার বলেন, আমি বিশ্বাস করি, বৃটিশ কোম্পানিগুলো ফেয়ার গ্রুপকে এ দেশে তাদের পার্টনার হিসাবে পেতে আগ্রহী হবে। আমি আমার টিমকে সে লক্ষ্যে কাজ করার নির্দেশনা দিয়েছি। আমি দেখেছি, নারী-পুরুষ সম্মিলিতভাবে পুরোপুরি সমান মর্যাদা নিয়ে এখানে একযোগে কাজ করছে। তারা সবাই মিলে বাংলাদেশেই বিশ্ব মানের পণ্য উৎপাদন করছে। আমি মনে করি এটাই বাংলাদেশের ভবিষ্যত।

তিনি আরও বলেন, যারা বলে থাকেন বাংলাদেশের কি বিশ্বমানের পণ্য উৎপাদনের সক্ষমতা রয়েছে, ফেয়ার গ্রুপ তাদের জন্য উদাহরণ হিসাবে নিজেদের গড়ে তুলেছে। অবশ্যই বাংলাদেশ সেই সক্ষমতা রাখে। ফেয়ার গ্রুপ-ই তার প্রমাণ। ওদের অসাধারণ নেতৃত্ব এবং সমতাভিত্তিক তরুণ উদ্ভাবনী টিমের এই অর্জনে আমি মুগ্ধ।

বৃটিশ হাই কমিশনারকে ধন্যবাদ জানিয়ে ফেয়ার গ্রুপের চেয়ারম্যান রুহুল আলম আল মাহবুব বলেন, ব্রিটিশ হাই কমিশনার রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসনের এই সফর আমাদেরকে দারূণভাবে উৎসাহিত করেছে এবং অনুপ্রেরণা যুগিয়েছে।

ভবিষ্যতে খ্যাতনামা বৃটিশ কোম্পানির সাথে যৌথভাবে বাংলাদেশে শিল্প-কারখানা গড়ে তোলার আগ্রহ প্রকাশ করে তিনি বলেন, বাংলাদেশে কর্পোরেট সোশ্যাল রেসপন্সিবিলিটি (সিএসআর)-এর ক্ষেত্রে বৃটিশ কোন প্রতিষ্ঠান আগ্রহী হলে ফেয়ার গ্রুপ তাদের সাথে কাজ করতে আগ্রহী।