২০২১ সালে তেল বিক্রি করে দ্বিগুণ লাভ হয়েছে। তাই চলতি বছর সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন তেল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান আরামকো তেল উৎপাদন বাড়াতে বিনিয়োগ বৃদ্ধির পরিকল্পনা করেছে। আগামী পাঁচ বছর তেলের উৎপাদন বাড়াতে এই উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। 

সাম্প্রতিক মাসগুলোতে সরবরাহের তুলনায় তেল এবং গ্যাসের চাহিদা ছাড়িয়ে গেছে। এতে জ্বালানির মূল্য দ্রুত বৃদ্ধি পেয়েছে। এ ছাড়া ইউক্রেনে রুশ হামলার পর রাশিয়া থেকে জ্বালানি আমদানিতে পশ্চিমা দেশগুলোর অনীহাও জ্বালানির বিকল্প উৎস খোঁজার তাগিদ তৈরি হয়েছে। খবর বিবিসি অনলাইনের। 

সৌদি আরামকোর এই সিদ্ধান্তকে জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধির কারণে উদ্বিগ্ন রাজনৈতিক নেতারা স্বাগত জানাবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। যদিও আগামী পাঁচ থেকে আট বছর উৎপাদন বৃদ্ধিতে বিনিয়োগ বাড়ানোর লক্ষ্য নিয়েছে আরামকো। 

এর আগে গত সপ্তাহে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন সৌদি আরব সফর করছেন। সফরে তিনি দেশটিকে অল্প সময়ের মধ্যে বিশ্ব বাজারে অধিকতর তেল ছাড়ার ব্যাপারে রাজি করানোর চেষ্টা করেন। 

সৌদি আরব পেট্রোলিয়াম রপ্তানিকারক দেশগুলোর মধ্যে সর্ববৃহৎ তেল উৎপাদনকারী দেশ। এখন দেশটি উৎপাদন বাড়ালে জ্বালানির মূল্য কমাতে সাহায্য করবে। কারণ বিশ্ব বাজারে বর্তমানে জ্বালানির মূল্য গত ১৪ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ পর্যায়ে রয়েছে।