বাজারে নিত্যপণ্যের দামের অস্থিরতায় পিছিয়ে নেই ডিমও। দুই দিনের ব্যবধানে ডজনে দাম বেড়েছে ১১ থেকে ২০ টাকা পর্যন্ত। রাজধানীর কারওয়ান বাজারে খুচরা পর্যায়ে ফার্মের মুরগির ডিমের ডজন ১২০ থেকে ১২২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে পাড়া-মহল্লায় তা ১২০ থেকে ১২৫ টাকা রাখা হচ্ছে।

হঠাৎ কেন বেড়েছে ডিমের দাম- এর যথাযথ জবাব ব্যবসায়ীদের কাছে মিলছে না। খুচরা ব্যবসায়ীরা বলছেন, পাইকারি বাজারে ডিমের সরবরাহ কমে গেছে। এ কারণে দাম বাড়ছে।

কারওয়ান বাজারের ডিম বিক্রেতা শাহ আলম বলেন, ডিমের চাহিদা বাড়লে পাইকাররা দাম বাড়িয়ে দেন। তখন খুচরা বিক্রেতাদেরও বাড়তি দরে বিক্রি না করে উপায় থাকে না। গত দুই-তিন বছরে ডিমের দাম ৯০ থেকে ১১৫ টাকার মধ্যে ছিল। এখন ১২০ টাকা ছাড়িয়ে গেছে বলে জানান তিনি।

নাখালপাড়া এলাকার মহসিন স্টোরের মালিক মো. মহসিন বলেন, দুই দিন ধরে বেড়েছে ডিমের দাম। পাইকারিতে ডজন কেনা পড়ছে ১১০ থেকে ১১২ টাকা। ১২৫ টাকার নিচে বিক্রি করলে লোকসান হবে।

ডিমের দাম বাড়ার বিষয়টি দেখা গেছে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) দৈনন্দিন বাজরের চিত্রেও। সংস্থাটির তথ্য বলছে, এক মাসের ব্যবধানে প্রায় ১২ শতাংশ দাম বেড়েছে ডিমের। বর্তমানে সর্বনিম্ন ১০৫ থেকে ১২৬ টাকায় বিক্রি হচ্ছে ডিমের ডজন।