করোনা অতিমারির ধকল কাটিয়ে ইতিবাচক ধারায় ফিরছে এমিরেটস এয়ারলাইন্স, ডানাটাসহ অন্যান্য অঙ্গপ্রতিষ্ঠানের সমন্বয়ে গঠিত এমিরেটস গ্রুপ। গত শুক্রবার গ্রুপটি ২০২১-২২ অর্থবছরের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। গত ৩১ মার্চ সমাপ্ত ২০২১-২২ অর্থবছরে এমিরেটস গ্রুপের লোকসানের পরিমাণ ১ বিলিয়ন বা ১শ কোটি ডলারে নেমেছে, যা আগের অর্থবছরে ছিল ৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। গ্রুপের রাজস্ব আয় এ সময় আগের অর্থবছরের তুলনায় ৮৬ শতাংশ বেড়ে ১৮ দশমিক ১০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে দাঁড়িয়েছে এবং নগদ স্থিতি ৩০ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

এমিরেটস এয়ারলাইন্স ও গ্রুপের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী শেখ আহমেদ বিন সাঈদ আল মাকতুম জানান, গত অর্থবছরে তাদের মূল লক্ষ্য ছিল নিরাপত্তা নিশ্চিত করে সারাবিশ্বে কার্যক্রম পুনরুদ্ধার করা। তিনি আশা প্রকাশ করেন, ২০২২-২৩ অর্থবছরে এমিরেটস গ্রুপ লাভের মুখ দেখতে সক্ষম হবে। তবে, একই সঙ্গে তিনি জ্বালানির উচ্চমূল্য, মুদ্রাস্ফীতি, করোনার নতুন ধরন এবং অর্থনৈতিক অনিশ্চয়তার মতো চ্যালেঞ্জের কথাও উল্লেখ করেন।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, এমিরেটস গ্রুপের অন্যতম সদস্য এমিরেটস এয়ারলাইন্সে গত অর্থবছরে ১ দশমিক ১০ বিলিয়ন ডলারের লোকসান হলেও অন্য সদস্য ডানাটা ৩০ মিলিয়ন ডলার মুনাফা অর্জনে সক্ষম হয়েছে। এর আগের অর্থবছরে এমিরেটস এয়ারলাইন্সের লোকসানের পরিমাণ ছিল সাড়ে ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। ২০২১-২২ অর্থবছরে এমিরেটস এয়ারলাইন্সের মোট রাজস্ব আয় বেড়েছে ৯১ শতাংশ এবং এর পরিমাণ ছিল ১৬ দশমিক ১০ বিলিয়ন ডলার। এ সময় যাত্রী ও কার্গো পরিবহন ক্ষমতা ৪৭ শতাংশ বেড়েছে।

করোনা অতিমারির দ্বিতীয় বছরে এমিরেটস এয়ারলাইন্সের কার্গো পরিবহন বিভাগ এমিরেটস স্কাইকার্গোর অর্জন ছিল উল্লেখযোগ্য। এয়ারলাইন্সটির ৪০ শতাংশ রাজস্ব এসেছে কার্গো পরিবহন খাত থেকে।