রোববারও দরপতন হচ্ছে শেয়ারবাজারে। দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) দুপুর ১২টা পর্যন্ত লেনদেনে আসা ৩৭৩ শেয়ারের মধ্যে ৩২২টিই দর হারিয়ে কেনাবেচা হচ্ছিল। যা মোটের ৮৬ শতাংশ।

দর বেড়ে কেনাবেচা হচ্ছিল মাত্র ৩১ শেয়ার ও দর অপরিবর্তিত অবস্থায় ছিল ২০টি।

এ নিয়ে দরপতন টানা অষ্টম দিনে গড়াল। গত বছরের ১১ অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া দরপতন গত সাড়ে সাত মাস ধরে থেমে থেমে চলছে।

রোববার অধিকাংশ শেয়ারের দরপতনে প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স ৮৪ পয়েন্ট হারিয়ে ছয় হাজার ১৭৩ পয়েন্টে নেমেছে। সূচকটি পতনে সেঞ্চুরির পথে।

আগের সাত কার্যদিবসের পতনে ডিএসইএক্স হারিয়েছে ৪৪০ পয়েন্ট।

দরপতন রোধে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি নানা সময়ে নানা উদ্যোগ ও পদক্ষেপ নিয়েছে। সব পদক্ষেপের ফল শূন্য।

সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবারের দরপতনের শেষে সকাল ১০টায় নিয়মিত লেনদেন শুরুর আগের প্রি-ওপেনিং মার্কেট সেশনে শেয়ার কেনা ও বেচার যে আদেশ দেওয়ার ব্যবস্থা ছিল, তা স্থগিত করেছে। রোববার থেকে কার্যকর হয়েছে।

দিনের লেনদেন পর্যবেক্ষণে দেখা যায়, সকাল ১০টায় লেনদেনের শুরু হয়েছিল বেশিরভাগ শেয়ারের দর ও মূল্য সূচক বৃদ্ধি দিয়ে। এতে সকাল ১০টা ৯ মিনিটে সূচকটি গত বৃহস্পতিবারের তুলনায় ২৫ পয়েন্ট বেড়ে ছয় হাজার ২৯১ পয়েন্ট ছাড়িয়েছিল।

দুপুর ১২টায় রোববারের সূচকের সর্বোচ্চ অবস্থান থেকে পতন হয়েছে ১১৮ পয়েন্ট।

এর পরই শেয়ার বিক্রির চাপে দরপতন শুরু হয়, যা এ প্রতিবেদন লেখার সময়ও চলছিল।

দুপুর ১২টায় ২৯ কোম্পানির শেয়ার দিনের সার্কিট ব্রেকার নির্ধারিত সর্বনিম্ন দরে কেনাবেচা হতে দেখা যায়। এ দর বা এ দরের কাছাকাছি দরে কেনাবেচা হচ্ছিল মোট ৪৮ কোম্পানির শেয়ার।

অব্যাহত দরপতনের প্রেক্ষাপটে ব্যক্তি থেকে প্রাতিষ্ঠানিক সব শ্রেণির বিনিয়োগকারীদের মধ্যে ব্যাপক হতাশা ভর করেছে।

নিয়ন্ত্রক সংস্থার শীর্ষ পর্যায় থেকে কয়েকটি গণমাধ্যমে শনিবারও বলা হয়েছে, আজ-কালের মধ্যে দরপতন বন্ধ হবে, ঘুরে দাঁড়াবে শেয়ারবাজার।

কিন্তু তাদের আশ্বাসের বাস্তব প্রতিফলন নেই।

এখন নিয়ন্ত্রক সংস্থার দায়িত্বশীল শীর্ষ কর্মকর্তাদেরই এ পরিস্থিতির জন্য দায়ী করছেন সংশ্লিষ্টরা। তাদের অভিযোগ, শীর্ষ কর্মকর্তাদের অতি-কথন এবং বাজারকে ঊর্ধ্বমুখী করতে কারসাজির চক্রকে অবাদ কারসাজি করতে দেওয়ার খেসারত দিচ্ছে পুরো বাজার।

দরপতন সত্ত্বেও লেনদেনের প্রথম দুই ঘণ্টায় ডিএসইতে ২৩০ কোটি ৮৪ লাখ টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়।