মার্কিন ডলারের লোভে গাইবান্ধার সাদুল্যাপুরে এসে প্রতারকদের খপ্পরে পড়ে ৩০ লাখ টাকা খুইয়েছেন মাওলানা আব্দুল বারী খান। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে নারীসহ চারজনের বিরুদ্ধে সাদুল্যাপুর থানায় মামলা করেছেন তিনি। এতে আসামি করা হয়েছে অজ্ঞাতপরিচয় চার থেকে পাঁচজনকে।

লোভে পড়ে টাকা খোয়ানো আব্দুল বারী খান পাবনার সুজানগর উপজেলার বগাজানি গ্রামের মৃত রিয়াজ উদ্দিন খানের ছেলে। তিনি বিভিন্ন ইসলামী জলসায় বক্তব্য দেন।

মামলার পর পুলিশের একাধিক দল প্রতারকদের ধরতে মাঠে নেমেছে। তবে শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত কাউকেই আটক করা সম্ভব হয়নি।

থানা সূত্র জানায়, আব্দুল বারী খানের সঙ্গে মোবাইল ফোনে পরিচয় হয় আলাল মিয়া নামের এক ব্যক্তির। পরে তার সঙ্গে বিভিন্ন সময় কথা বলেন তিনি। এক পর্যায়ে আলাল মিয়া সুকৌশলে আব্দুল বারী খানকে মার্কিন ডলারের লোভ দেখায়। এই ডলারগুলো আলাল মিয়ার চাচা সিলেটে রিকশা চালাতে গিয়ে পেয়েছেন বলে জানায়।

এক পর্যায়ে আলাল মিয়ার ডাকে সাড়া দিয়ে আব্দুল বারী খান ১৫ মে সাদুল্যাপুরে এসে মার্কিন ১০, ৫ এবং ১ ডলারের তিনটি নোট নিয়ে যান পরীক্ষার জন্য। পরীক্ষায় নোটগুলো সঠিক জানতে পেরে আলাল মিয়ার কাছে থাকা সব ডলার কেনার জন্য ১৯ মে ফের সাদুল্যাপুরে আসেন আব্দুল বারী খান। নিয়ে আসেন ৩০ লাখ টাকা। সহযোগী হিসেবে আনেন বাবর আলী নামের একজনকে।

আব্দুল বারী খান ও সহযোগী বাবর আলীকে নিয়ে আলাল মিয়া আসেন সাদুল্যাপুরের চক সালাইপুর গ্রামে। সেখানে আসামাত্রই পূর্ব থেকে ওতপেতে থাকা প্রতারক চক্র আব্দুল বারী খান ও সহযোগী বাবর আলীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে তাদের সঙ্গে থাকা ৩০ লাখ ১২ হাজার টাকা নিয়ে সটকে পড়ে।