চালসহ নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বরিশালে গণসংহতি আন্দোলনের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ করেছেন। মঙ্গলবার সকালে নগরের সদর রোড অশ্বিনী কুমার হল চত্বরে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। পরে গণসংহতি আন্দোলনে নেতাকর্মীদের বিক্ষোভ মিছিল নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, দেশে এখন চলছে বোরো ধানের ভরা মৌসুম। প্রতিবছর এ সময় চালের দাম কমতির দিকে থাকে। এবার চিত্র উল্টো। অটোরাইস মিল মালিকরা চাল মজুত করায় এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। সরকারের দুর্বল বাজার মনিটরিংয়ের জন্য এমন সিন্ডিকেট বারবার মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে। সংসদে জাতীয় বাজেট পেশকালে জ্বালানি তেল ও সারের দাম পর্যায়ক্রমে ও স্বল্প আকারে বাড়িয়ে সমন্বয় করার কথা বলেছেন অর্থমন্ত্রী। জ্বালানি তেলের সঙ্গে সরাসরি পরিবহন খরচ যুক্ত। তেলের দাম আরো বাড়লে এর প্রভাব অন্যান্য খাতেও পড়বে। প্রস্তাবিত বাজেটে জ্বালানি তেলে ভর্তুকিতে কোনো অর্থ বরাদ্দ প্রস্তাব করা হয়নি। অপরদিকে বিদ্যুৎ উৎপাদনে ক্যাপাসিটি চার্জের নামে সরকার বছরে হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি দিয়েই চলছে যা জনগণের পকেট কাটার সামিল।

গণসংহতি আন্দোলনের বরিশাল জেলা আহ্বায়ক দেওয়ান আব্দুর রশিদ নীলুর সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তৃতা করেন আরিফুর রহমান মিরাজ, নজরুল ইসলাম খান, ইয়াসমিন সুলতানা, সজীব ওয়াফি, জামান কবির, জাবের মোহাম্মদ, হাছিব আহমেদ, রুহুল আমিন প্রমুখ।