চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এতে দুইজন আহত হয়েছেন। শনিবার আহত মো. শাহাদাত ও ইমাম উদ্দিনকে বাঁশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। তাদের অবস্থা খারাপ হওয়ায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। এদের মধ্যে ইমামের ডান হাত বিচ্ছিন্ন হওয়ার পথে। হাত থেকে মাংস উড়ে গিয়ে তা ঝুলে রয়েছে।

চট্টগ্রাম জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জাহাঙ্গীর বলেন, দুই জন আহত হওয়ার বিষয়টি শুনেছি। তবে বিস্ফোরণের কারণ এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

বাঁশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক আরমান চৌধুরী বলেন, আহত দুই জনের মধ্যে ইমামের পা ভেঙ্গে গেছে। শাহাদতের একটি হাত প্রায় বিচ্ছিন্ন। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। এটি একটি রাসায়নিক বিস্ফোরণ ছিল বলে ধারণা করছি।

২০১৬ সালে বাঁশখালীর এ কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রে তিনটি ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১২ জন শ্রমিক ও স্থানীয় বাসিন্দা মারা গেছেন। তার মধ্যে স্থানীয় বিক্ষোভকারীদের ওপর প্রশাসনের গুলি এবং শ্রমিকরা তাদের চীনা পরিচালকদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে হতাহতের ঘটনা ঘটে। ১ হাজার ৩২০ মেগাওয়াট প্ল্যান্টটি ২.৫ বিলিয়ন ব্যয়ে নির্মিত হচ্ছে। বাংলাদেশে চীনের সবচেয়ে বড় বিনিয়োগের মধ্যে একটি, এটি চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং কর্তৃক ২০১৬ সালে স্বাক্ষরিত চুক্তিগুলোর মধ্যে একটি। একটি চীনা প্রকৌশল কোম্পানি ও বাংলাদেশের এসআলম যৌথ উদ্যোগে বাস্তবায়ন করছে।