বিশ্বব্যাংক গ্রুপের প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স করপোরেশন (আইএফসি) এবং বাংলাদেশের অন্যতম বেসরকারি ব্যাংক ব্র্যাক ব্যাংক যৌথভাবে হাউজিং বন্ড চালু করবে বলে ঘোষণা দিয়েছে। নিম্ন ও মধ্যম আয়ের শহুরে ও গ্রামীণ পরিবার, যারা সাধারণত বাণিজ্যিক ব্যাংকের সেবা পায় না, তারা আইএফসির বিনিয়োগে বেসরকারি ব্র্যাক ব্যাংকের ইস্যুতব্য দেশের প্রথম হাউজিং বন্ডের মাধ্যমে সাশ্রয়ী গৃহায়ন ঋণ বা হাউজিং লোন নিতে সক্ষম হবেন।

সোমবার এ বিষয়ে আইএফসির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো আইএফসি ব্র্যাক ব্যাংকের দ্বারা ৫০ মিলিয়ন ডলার পর্যন্ত মূল্যমানের টাকা ডিনোমিনেটেড ৫ বছরের সিনিয়র বন্ডের সাবস্ক্রিপশন করবে। এ উদ্যোগের ফলে নির্মাণ এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য খাতে হাজার হাজার নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে বলে আশা করা যায়।

এতে বলা হয়, বাংলাদেশের শহরগুলোর আনুমানিক ৮০ শতাংশ মানুষ সারাজীবন ভাড়া বাসায় বসবাস করেন, যার কারণ প্রধানত মর্টগেজ ফিন্যান্স বা বন্ধকী অর্থায়নের অভাব। বাংলাদেশের ঋণ বাজারের মাত্র ৩ শতাংশ গৃহ বন্ধক ঋণ, যেখানে দক্ষিণ এশিয়ার গড় ৪ দশমিক ৯ শতাংশ এবং উদীয়মান বাজারের গড় ৮ দশমিক ৯ শতাংশের নিচে। বেশিরভাগ আর্থিক প্রতিষ্ঠান উচ্চ আয়ের লোকদের গৃহায়ন ঋণ প্রদানের ওপর গুরুত্ব দেয়, যেখানে নিম্ন এবং মধ্যম আয়ের মানুষের জন্য আনুষ্ঠানিক গৃহায়ন ঋণের সুযোগ খুবই সীমিত। এ কারণে একদিকে প্রিমিয়াম বা উচ্চ আয়ের মানুষের জন্য হাউজিং উদ্বৃত্ত, অন্যদিকে নিম্ন ও মধ্যম আয়ের মানুষের জন্য গৃহায়ন অর্থায়ন এবং আবাসন ইউনিটের স্বল্পতা রয়ে যাচ্ছে।

ব্র্যাক ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সেলিম আর. এফ. হোসেন বলেন, '২০০১ সালে আমাদের প্রতিষ্ঠার পর থেকে এটি ব্র্যাক ব্যাংকের জন্য একটি সম্পূর্ণ নতুন কৌশলগত অগ্রাধিকার হিসেবে চিহ্নিত করছে, যেখানে আমাদের লক্ষ্য বঞ্চিত ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের জন্য অর্থায়ন প্রাপ্তি সহজ করা। আমরা আইএফসির সঙ্গে মিলে উপলব্ধি করেছি যে, স্বল্প এবং মধ্যম আয়ের অনেক উর্পাজনকারী আবাসনের জন্য প্রয়োজনীয় তহবিল পান না। এখন আধা-শহুরে বা সেমি-আরবান এলাকার মানুষেরাও আমাদের সাশ্রয়ী মূল্যের হোম মর্টগেজ সুবিধার মাধ্যমে একটি বাড়ির মালিক হওয়ার স্বপ্ন পূরণ করতে পারবেন।'

বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো বেসরকারিভাবে স্থাপিত হাউজিং বন্ড ইস্যু করার ক্ষেত্রে বিনিয়োগকারী হিসেবে আইএফসি দেশের দীর্ঘমেয়াদি বন্ড বাজারে গভীরতা আনতে সহায়তা করবে, যা এখনও অনুন্নত রয়ে গেছে। ঋণ পুঁজিবাজারের উন্নয়নে প্রকল্পটিতে সমর্থন দিয়েছে বিশ্বব্যাংক গ্রুপের একটি উদ্যোগ 'জয়েন্ট ক্যাপিটাল মার্কেটস প্রোগ্রাম (জে-ক্যাপ)'। জে-ক্যাপের প্রচেষ্টায় সংযুক্ত হয়ে আইএফসির এ উদ্যোগ বাংলাদেশে প্রথম হাউজিং ফিন্যান্স বন্ডের গঠন ও ভিত্তি স্থাপনে ব্র্যাক ব্যাংককে সহায়তা দেওয়ার সঙ্গে সম্পৃক্ত। এই বিনিয়োগ ইউএস ডলার/ টাকা ক্রস-কারেন্সি সোয়াপের মাধ্যমে স্থানীয় মুদ্রায় ঋণ সুবিধা দিতে ইন্টারন্যাশনাল ডেভলপমেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের (আইডিএ) প্রাইভেট সেক্টর উইন্ডোর (আইএফসি) স্থানীয় মুদ্রায় ঋণ প্রদানের সুবিধা দ্বারা সমর্থিত।

আইএফসির আঞ্চলিক পরিচালক (ফিন্যান্সিয়াল ইনস্টিটিউশনস গ্রুপ, এশিয়া অ্যান্ড প্যাসিফিক) আলেন ফরলেমু বলেন, 'এই উদ্ভাবনী সমঝোতা অভ্যন্তরীণ দীর্ঘমেয়াদি বন্ড বাজারের উন্নয়নে একটি গুরুত্বর্পূণ মাইলফলক এবং স্বল্প ও মধ্যম আয়ের মানুষের সাশ্রয়ী মূল্যের গৃহায়ন অর্থায়ন পাওয়ার তীব্র সংকট মেটানোর প্রথম ও একমাত্র এ উদ্যোগ বাংলাদেশের জন্য বহুবিধ সুবিধা বয়ে আনবে। এছাড়া এটি গৃহায়ন অর্থায়নের জন্য স্থানীয় বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে প্রথমবারের মতো কোনো বিদেশি বিনিয়োগকারীর অনশোর স্থানীয় মুদ্রায় বিনিয়োগ পরিকল্পনা। এ উদ্যোগ নতুন বিদেশি ও স্থানীয় বিনিয়োগকারীদের জন্য স্থানীয় করপোরেট বন্ড বাজারে এ ধরনের বিষয়ভিত্তিক বন্ডে বিনিয়োগের সুযোগ তৈরিতে সহায়তা করবে।'

এ উদ্যোগের মাধ্যমে আইএফসি এবং ব্র্যাক ব্যাংক যৌথভাবে একটি বাণিজ্যিকভাবে সম্ভাবনাময় ঋণ পণ্য আনার লক্ষ্য হাতে নিয়েছে, যা নিম্ন ও মধ্যম আয়ের পরিবারের গৃহঋণ চাহিদা মেটাবে, অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়ন উৎসাহিত করবে এবং হাজার হাজার নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করবে।