বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় রাজধানীর গুলশানে জামদানি প্রদর্শনী কেন্দ্র 'টানাপোড়েন' এর কার্যক্রম শুরু হয়েছে। সোমবার এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী। অনুষ্ঠানে তারাব পৌরসভার মেয়র মিসেস হাছিনা গাজী, পিকেএসএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. নমিতা হালদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রী বলেন, জামদানি ও মসলিন শাড়ি বাংলাদেশের ঐতিহ্য এবং বাঙালিয়ানার প্রতীক। এ শিল্পের উন্নয়ন ও তাঁতিদের আর্থসামাজিক উন্নয়নে কাজ করছে সরকার। তাঁতিদের জন্য সহজ শর্তে ঋণ বিতরণ কার্যক্রম চলমান রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, একটি মাঝারি মানের মসলিন শাড়ি তৈরি করতে ৫ থেকে ৬ মাস সময় লেগে যায়। ফলে শাড়ির দাম সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে যায়। বাণিজ্যিক উৎপাদনের মাধ্যমে মসলিনের স্বকীয়তা ঠিক রেখে সাধারণ মানুষের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে নিয়ে আসার চেষ্টা করছে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়।

তিনি আরও বলেন, পদ্মা সেতুকে কেন্দ্র করে শিল্পায়নের মাধ্যমে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলায় নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করতে চায় বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়। সেতুর জাজিরা প্রান্তে মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলায়  ১২০ একর জমিতে 'শেখ হাসিনা তাঁত পল্লী' স্থাপনের কাজ চলমান রয়েছে।