আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে ১০০ বিলিয়ন ডলারের পোশাক রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রা ঘোষণা করেছে এ খাতের উদ্যোক্তাদের সংগঠন বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ)। 

এ সময়ের মধ্যে ৬০ লাখ কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং শতভাগ করপোরেট সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। টেকসই এবং পরিবেশবান্ধব উৎপাদন ও রপ্তানিকে টার্গেট করে এরকম মোট ২০টি লক্ষ্যমাত্রার একটি রোডম্যাপ ঘোষণা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিকভাবে এই রোডম্যাপ ঘোষণা করা হয়। এ উপলক্ষে রাজধানীর হোটেল ওয়েস্টিনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বিজিএমইএ-এর সাবেক সভাপতি আব্দুস সালাম মুর্শেদী। সভাপতিত্ব করেন বিজিএমইএ-এর সভাপতি ফারুক হাসান।

নতুন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের পরিকল্পনায় পুরোনো স্লোগান পরিবর্তন করা হয়েছে। মেইড ইন বাংলাদেশ এর পরিবর্তে নতুন স্লোগান ‘চেইঞ্জ, চেইঞ্জিং চেইঞ্জড’। ৫০ বিলিয়ন ডলারের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণের সময় বিজিএমইএ’র স্লোগান ছিল ‘মেইড ইন বালাদেশ উইথ প্রাইড’। 

এ ছাড়া নতুন পরিকল্পনায় বিজিএমইএ’র দীর্ঘদিনের নিজস্ব লোগো পরিবর্তন করা হয়েছে। নতুন লোগোতে উৎপাদন ও রপ্তানির সঙ্গে সম্পর্কিত ৯টি ক্ষেত্র ফুটিয়ে তোলা হয়েছে।