প্রবাসী বাংলাদেশিদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলতে সংশ্লিষ্ট দূতাবাস থেকে কাগজপত্র সত্যায়নের শর্ত ছিল ব্যাংকগুলোর। এ শর্তের কারণে অনেক সময় অ্যাকাউন্ট খোলার আগ্রহ হারান প্রবাসীরা। এমন বাস্তবতায় প্রবাসীদের অ্যাকাউন্ট খুলতে দূতাবাস থেকে কাগজপত্র সত্যায়নের আবশ্যকতা দেওয়া যাবে না। 

বুধবার বিএফআইইউ থেকে এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা ব্যাংকগুলোতে পাঠানো হয়।

সার্কুলারে বলা হয়েছে, মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট (এমআরপি) ও ইলেকট্রনিক পাসপোর্ট নির্দিষ্ট যাচাই প্রক্রিয়া অবলম্বন করে ইস্যু করা হয়। ফলে বিদেশে অবস্থানরত প্রবাসীদের অ্যাকাউন্ট খোলার ক্ষেত্রে ব্যাংকের যাচাইয়ের জন্য দলিলাদি সংশ্লিষ্ট দূতাবাস থেকে সত্যায়নের আবশ্যকতা নেই। 

এতে আরও বলা হয়েছে, বিদেশে অবস্থানরত প্রবাসী ব্যক্তিদের হিসাব খোলার ক্ষেত্রে ব্যাংকগুলো অন্যান্য বিষয়ের সঙ্গে দলিলাদি বিদেশে বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে সত্যায়নের শর্ত আরোপ করে। বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের (বিএফআইইউ) কোনো নির্দেশনায় যা উল্লেখ নেই।

বিএফআইইউর একজন কর্মকর্তা সমকালকে বলেন, আগে হাতে লেখা পাসপোর্ট ছিল। যে কারণে দেশের বাইরে অবস্থানরত ব্যক্তির অ্যাকাউন্টের তথ্য যাচাই করা কঠিন ছিল। এখন এমআরপি বা ই-পাসপোর্টের ফলে যে কারও তথ্য যাচাই করা সহজ। যে কারণে এ বিষয়ে ব্যাংকগুলোকে বলা হয়েছে। 

তিনি বলেন, প্রবাসীদের হিসাব খোলার ক্ষেত্রে তথ্য যাচাইয়ের নির্দেশনা কখনও ছিল না। ব্যাংকগুলো নিজেদের মতো করে শর্ত আরোপ করছিল। এতে প্রবাসীর হিসাব খোলায় সমস্যা হয়। বিভিন্ন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে দেরি হওয়ায় কখনো-কখনো প্রবাসী আর হিসাবই খুলতেন না।