বিদেশি এক্সচেঞ্জ হাউজের সঙ্গে ড্রয়িং অ্যারেঞ্জমেন্ট স্থাপন বা প্রবাসী রেমিট্যান্স দেশে আনার চুক্তি করতে আর বাংলাদেশ ব্যাংকের পূর্বানুমতি লাগবে না। ড্রয়িং অ্যারেঞ্জমেন্ট স্থাপনের পর প্রযোজনীয় তথ্যসহ শুধু কেন্দ্রীয় ব্যাংককে অবহিত করতে হবে।

বুধবার এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা সব ব্যাংকে পাঠানো হয়েছে।

সার্কুলারের মাধ্যমে ড্রয়িং অ্যারেঞ্জমেন্ট স্থাপনে বিদেশস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস বা হাইকমিশনের প্রত্যয়নপত্রের প্রয়োজনীয়তাও প্রত্যাহার করা হয়েছে। উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের লাইসেন্স থাকা সাপেক্ষে সংশ্লিষ্ট এক্সচেঞ্জ হাউজের বিষয়ে ডিউডিলিজেন্স মেনে সম্পর্ক স্থাপন ককরতে বলা হয়েছে।

এতদিন ব্যাংকের আবেদনের ভিত্তিতে বাংলাদেশ ব্যাংক বিদেশি এক্সচেঞ্জ হাউজের সঙ্গে ড্রয়িং অ্যারেঞ্জমেন্ট স্থাপনের অনুমোদন দিত। নতুন নীতিমালার ফলে প্রবাসী আয় আনার ক্ষেত্রে সহায়ক হবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।