গত রোববার আইসিসি বাংলাদেশ সচিবালয়ে আইসিসি বাংলাদেশ ব্যাংকিং কমিশনের সভা অনুষ্ঠিত হয়। এর চেয়ারম্যান মুহাম্মদ এ (রুমী) আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় কমিশন কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনার জন্য কয়েকটি ফোকাস গ্রুপ গঠন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তারা নীতিনির্ধারকদের কাছে সুপারিশ করবে।

আইসিসিবি বাংলাদেশের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ফোকাস গ্রুপের ক্ষেত্রের মধ্যে রয়েছে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য অর্থায়ন, জলবায়ু, আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সামাজিক কার্যক্রম ও টেকসই অর্থায়ন, আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ডিজিটালাইজেশন এবং সাইবার নিরাপত্তা, ক্রেডিট রিস্ক ম্যানেজমেন্ট, প্রতারণার ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা, খেলাপি ঋণ কমানো ইত্যাদি।

পুনর্গঠিত ব্যাংকিং কমিশনের সদস্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিআইবিএমের সুপারনিউমারারি অধ্যাপক মো. আহসান উল্লাহ, সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংকের চেয়ারম্যান ড. মো. মাহবুব-উল-আলম, ঢাকা ব্যাংকের এমডি এমরানুল হক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের এমডি সৈয়দ ওয়াসেক মো. আলী, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের এমডি সৈয়দ মাহবুবুর রহমান, প্রাইম ব্যাংকের এমডি হাসান ও রশিদ, ট্রাস্ট ব্যাংকের এমডি হুমাইরা আজম, গ্রিনটেক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশের সাসটেইনেবল ফাইন্যান্সের প্রধান উপদেষ্টা খোন্দকার মোর্শেদ মিল্লাত, ইস্টার্ন ব্যাংকের এএমডি আহমেদ শাহীন, বিআইবিএমের পরিচালক (প্রশিক্ষণ) অধ্যাপক শাহ মো. আহসান হাবীব এবং আইসিসি বাংলাদেশের মহাসচিব আতাউর রহমান।

কমিশনের অন্য সদস্যরা হলেন- পূবালী ব্যাংকের সাবেক এমডি হেলাল আহমেদ চৌধুরী, সামিট অ্যালায়েন্স পোর্টের এমডি সৈয়দ আলী জওহর রিজভী, ব্র্যাক ব্যাংকের এমডি সেলিম আরএফ হোসেন, সিটি ব্যাংকের এমডি মাশরুর আরেফিন, এইচএসবিসি বাংলাদেশের সিইও মো. মাহবুব উর রহমান, আইএফআইসি ব্যাংকের এমডি শাহ আলম সরওয়ার, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের সিইও নাসের এজাজ বিজয় এবং বিকাশের সিইও কামাল কাদির। আইসিসি বাংলাদেশের সভাপতি মাহবুবুর রহমান ব্যাংকিং কমিশনের সদস্য হওয়ার আমন্ত্রণ গ্রহণ করার জন্য সদস্যদের ধন্যবাদ জানান এবং আশা প্রকাশ করেন, ব্যাংকিং খাতে তাঁদের পরামর্শ ও সুপারিশ নীতিনির্ধারকদের জন্য অত্যন্ত সহায়ক হবে।