ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

চাইলেও বন্ধ কোম্পানিকে তালিকাচ্যুত করা যাচ্ছে না

চাইলেও বন্ধ কোম্পানিকে  তালিকাচ্যুত করা যাচ্ছে না

.

সমকাল প্রতিবেদক

প্রকাশ: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ২২:৫৬

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কিছু কোম্পানির উৎপাদন বা ব্যবসা বন্ধ বছরের পর বছর ধরে। সর্বশেষ অবস্থা, আর্থিক প্রতিবেদনসহ অন্যান্য তথ্যও প্রকাশ করে না তাদের অনেকে। আইন অনুযায়ী এসব কোম্পানিকে তালিকাচ্যুত করার সুযোগ থাকলেও তা করে না স্টক এক্সচেঞ্জ। এতে নানাভাবে ভুল বার্তা যায় বিনিয়োগকারীদের কাছে।
তবে এর দায় স্টক এক্সচেঞ্জের নয় বলে দাবি করেছেন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) কর্মকর্তারা। সোমবার রাজধানীতে এক অনুষ্ঠানে তারা এমনটি দাবি করেন। তারা বলেন, শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি বিদ্যমান আইন ও সময়ে সময়ে বেঁধে দেওয়া নির্দেশনা মেনে কার্যক্রম চালায় স্টক এক্সচেঞ্জ। ক্যাটেগরি পরিবর্তনসহ এমন কিছু চাইলেও আইন অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নিতে পারছে না স্টক এক্সচেঞ্জ। 
তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলো আইন অনুযায়ী যেসব তথ্য স্টক এক্সচেঞ্জকে দেয়, তা স্বয়ংক্রিয়ভাবে প্রদানের জন্য ‘স্মার্ট সাবমিশন সিস্টেমস অব ডিএসই’ নামে একটি অনলাইন ব্যবস্থা আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করেছে ডিএসই। ঢাকার নিকুঞ্জে ডিএসই টাওয়ারে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এ ব্যবস্থার উদ্বোধন করা হয়।

অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ডিএসইর কর্মকর্তারা বলেন, কোনো কোম্পানি বন্ধ নাকি চালু তা স্টক এক্সচেঞ্জের পক্ষ থেকে জানা সম্ভব নয়, যদি না সংশ্লিষ্ট কোম্পানি নিজে থেকে তথ্য দেয়। কোনো সূত্রে তথ্য পেলেও বিএসইসির পূর্ব অনুমোদন ছাড়া কোম্পানি পরিদর্শনের সুযোগ নেই। যদিও এক সময় আকস্মিক পরিদর্শনে যেতে পারত ডিএসই। আরেক প্রশ্নের জবাবে ডিএসইর কর্মকর্তারা বলেন, দীর্ঘদিন বন্ধ থাকা এবং তথ্য না দেওয়ার কারণে সরেজমিন পরিদর্শন শেষে রহিমা ফুড এবং মডার্ন ডাইং নামের দুটি কোম্পানিকে তালিকাচ্যুত করেছিল ডিএসই। আরও কোম্পানিকে তালিকাচ্যুত করার উদ্যোগ ছিল। পরে বিএসইসি ওই দুই কোম্পানিকে ফের তালিকাভুক্ত করার নির্দেশ দেয়। এর পর বাকিগুলোর বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়া বন্ধ হয়।

তথ্য প্রদানে অনলাইন ব্যবস্থা চালু বিষয়ে ডিএসইর চেয়ারম্যান ড. হাফিজ মুহম্মদ হাসান বাবু বলেন, শেয়ারবাজারকে স্মার্ট করার কাজ চলছে। ইতোমধ্যে ডিএসই নিজস্ব স্মার্ট ডাটা সেন্টার করছে। 
ডিএসইর এমডি এ টি এম তারিকুজ্জামান বলেন,  ডিএসইর তথ্য প্রকাশ ব্যবস্থা স্বয়ংক্রিয় হওয়ায় অনিচ্ছাকৃত ভুল কমবে। ব্রোকারদের সংগঠন ডিবিএর সভাপতি সাইফুল ইসলাম বলেন, যথাসময়ে তথ্য না দেওয়া ভুল তথ্য দেওয়ার সমতুল্য। বিএপিএলসির সভাপতি রূপালী চৌধুরী বলেন, যেসব কোম্পানি বছরের পর বছর তথ্য দেয় না, তাদের তালিকা দিলে ওই কোম্পানির সদস্যপদ বিষয়ে করণীয় ঠিক করবে বিএপিএলসি। 

আরও পড়ুন

×