সমাজকর্ম একটি সাহায্যকারী পেশা, যা সামাজিক বিজ্ঞানের একটি শাখা বিশেষ; যেখানে সামাজিক ও ব্যক্তির মানসিক পরিবর্তন বা সমাজকর্ম ও মানব সম্পর্কের বিষয়াবলি নিয়ে আলোকপাত করা হয়; যা ব্যক্তি, সমাজ ও রাষ্ট্রের নানা সমস্যা সমাধানে গুরুত্বপূর্ণ সহায়ক ভূমিকা পালন করে। আধুনিক সমাজকল্যাণ বা সমাজকর্ম যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপসহ বিশ্বের উন্নয়নশীল দেশগুলোতে সামাজিক বিজ্ঞান হিসেবে পঠিত হলেও বাংলাদেশে এর প্রসার ঘটে তারও অনেক পরে। জাতিসংঘের সুপারিশ ও সহায়তায় সমাজকর্মবিষয়ক এক প্রশিক্ষণ কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে পেশাদার সমাজকর্ম শিক্ষার অগ্রযাত্রা শুরু হয়। জাতিসংঘের সুপারিশের ভিত্তিতে ১৯৫৩ সালে ঢাকায় তিন মাসব্যাপী স্বল্পকালীন প্রশিক্ষণ কোর্স প্রবর্তন এবং ১৯৫৪ সালে 'ঢাকা প্রজেক্ট' নামে শহর সমষ্টি উন্নয়নমূলক কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়। ক্রমবর্ধমান চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে ১৯৫৫-৫৬ অর্থবছরে 'ঢাকা মেডিকেল কলেজে' চিকিৎসা সমাজকর্ম প্রবর্তনের মাধ্যমে এ দেশে পেশাদার সমাজকর্মের ভিত্তি প্রতিষ্ঠিত হতে থাকে।

এরপর ১৯৫৮ সালে ঢাকায় দেশের প্রথম সমাজকর্মের উচ্চশিক্ষার প্রতিষ্ঠান 'কলেজ অব সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার অ্যান্ড রিচার্স সেন্টার' প্রতিষ্ঠা করা হয়; যা পরবর্তী সময়ে রূপান্তর করা হয় সমাজকর্ম গবেষণা ইনস্টিটিউট নামে। তখন থেকেই এই প্রতিষ্ঠান সমাজকর্মের ওপর স্নাতক, স্নাতকোত্তর, এমফিল ও পিএইচডি ডিগ্রি দিয়ে আসছে। বর্তমানে দেশের প্রথম সারির বিশ্ববিদ্যালয় এবং উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে পড়ানো হয়। উন্নত বিশ্বে সমাজকর্মের পেশা হিসেবে স্বীকৃতি থাকলেও বাংলাদেশে সমাজকর্ম শিক্ষা প্রচলনের অনেকগুলো বছর পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত এর প্রাতিষ্ঠানিক স্বীকৃতি বা পেশা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়নি। যদিও ১৯৭৭ সাল পর্যন্ত সরকারের সমাজসেবা বিভাগে 'সমাজসেবা কর্মকর্তা' পদটি সমাজকল্যাণ বা সমাজকর্মের স্নাতকদের জন্য সংরক্ষিত ছিল, যা পরে সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়। শিল্পায়ন ও নগরায়ণের ফলে আমাদের দেশে হচ্ছে নানা আর্থসামাজিক সমস্যা, পারিবারিক বিশৃঙ্খলা, বস্তি ও গৃহায়ণ সমস্যা, বেকারত্ব, জনসংখ্যা স্ম্ফীতি, নিরক্ষতা, অপরাধ, কিশোর অপরাধ, মাদকাসক্ত, আত্মহত্যা, মানব পাচার, নারী ও শিশু নির্যাতনসহ প্রভৃতি ক্ষেত্রে জনসচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে সামাজিক আনয়নে সমাজকর্মের জ্ঞান, কৌশল, ক্ষমতা ও পদ্ধতি প্রয়োগের মাধ্যমে বিদ্যমান সমস্যার সমাধান এবং যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া সম্ভব। সামাজিক, পারিবারিক ও রাষ্ট্রীয় বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে সমাজকর্মের জ্ঞান ও দক্ষতা খুবই কার্যকর। উন্নত বিশ্বের মতো আমাদের দেশেও পেশাদার সমাজকর্মী নিয়োগ, সমাজকর্মকে পেশা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া এবং বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে যথাযথ পদক্ষেপ প্রত্যাশা করছি।
শিক্ষার্থী, সমাজকল্যাণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
mahibalom47@gmail.com

মন্তব্য করুন