অভিনেত্রী ববিতার একমাত্র ছেলে থাকেন কানাডায়। সেখানে পড়াশুনা করছেন তিনি। আর ববিতা থাকছেন দেশে। মাঝে মাঝে ছেলের কাছে যান ববিতা। মা-ছেলে তখন দারুণ সময় কাটান। কিন্তু মা-ছেলের মধ্যে দেয়াল হয়ে দাঁড়িয়েছে করোনাভাইরাস। দুই বছর হয় ছেলের সঙ্গে সরাসরি দেখা নেই ববিতার। কিন্তু কতদিন আর পূত্রকে না দেখে থাকবেন? ববিতা থাকতে পারলেন না।

আজ এ অভিতেত্রীর জীবনের বিশেষ একটি দিন। জন্মদিনের বিশেষ এ দিনে ছেলেকে পাশে বসিয়েই কেক কাটার সুযোগ হয়েছে বলে জানান ববিতা। 

বৃহস্পতিবার রাতে ববিতা কানাডা থেকে সমকালকে বলেন, ছেলেকে কতদিন হয় দেখি না। ভিডিও কলে কথা হলেও তাতে তো আর মায়ের মন ভরে না। প্রায় দুই বছর হলো অনিকের কাছে আসতে পারছিলাম না। ভেতরে ভেতরে খুব কষ্ট হতো আমার। এবার জন্মদিনটা মা ছেলে এক সাথেই কাটছে।

ববিতা ও তার ছেলে অনিক

এর আগে বেশ কয়েকবার প্রস্তুতি নিয়েও ছেলের কাছে আসা হয়নি ববিতার। তার কারণ জানিয়ে ববিতা বলেন, করোনার কারণেই আসা হয়নি কানাডায়। বিশেষ করে কোয়ারেন্টিনের নানা নিয়ম মেনে শেষ পর্যন্ত মন আসতে সায় দেয়নি। কিন্তু এভাবে আর কতদিন? অবশেষে  গত সপ্তাহে তিনি ছেলেকে দেখতে কানাডায় যান। 

ববিতা জানান, ঢাকায় একা থাকতে থাকতে এক ঘেয়ে পেয়ে বসেছিলো তাকে। অন্যদিকে তার ভিসার মেয়াদও শেষ হয়ে গিয়ে ছিলো। পরে ভিসার জন্য আবেদন করলে ভিসা প্রদান করা হয়। ববিতা বলেন, মাকে ছেলের কাছে আসতে তারা আমার আবেদন গ্রহণ করে কানাডা আসার অনুমতি দিয়েছেন। ছেলের কাছে এসে কী যে ভালোলাগছে তা ভাষায় প্রকাশের নয়।

করোনার কারণে নিজের জন্মদিনে কোনো উচ্ছাস নেই বলেই জানালেন।