বাংলা একাডেমির বই কেনা ও সদস্যদের বার্ষিক ফি দেওয়া যাবে ডাক বিভাগের মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস নগদে। এখন থেকে সারাদেশের বইপ্রেমীরা বাংলা একাডেমি থেকে বই কেনা ও একাডেমির নির্বাহী পরিষদের সদস্যরা তাদের বার্ষিক ফি পরিশোধ করতে পারবেন নগদের মাধ্যমে।

বুধবার সকালে বাংলা একাডেমির ডক্টর মুহম্মদ শহীদুল্লাহ ভবনে বাংলা একাডেমি, বাংলাদেশ ডাক বিভাগ ও 'নগদ' লিমিটেডের মধ্যে এ সম্পর্কিত একটি চুক্তি সই হয়। এসময় ডাক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. সিরাজ উদ্দিন, বাংলা একাডেমির সচিব এ এইচ এম লোকমান ও নগদের নির্বাহী পরিচালক মো. সাফায়েত আলমসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

এই চুক্তির মধ্য দিয়ে বাংলা একাডেমির বিক্রয় ও বিপণন উপবিভাগের বিল পরিশোধ করা যাবে নগদে। ফলে 'নগদ' ওয়ালেট দিয়ে সারাদেশ থেকে আগত পাঠক ও প্রকাশকরা বাংলা একাডেমি থেকে কেনা সব বইয়ের মূল্য সহজেই পরিশোধ করতে পারবেন।

বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক মুহম্মদ নূরুল হুদা বলেন, দেশ যখন ইন্টারনেটকে যোগাযোগ ও বিনিময়ের প্রধান বাহন হিসেবে ব্যবহার করছে, তখন নগদ ও বাংলা একাডেমির মাঝে এই চুক্তি নব দিগন্তের সূচনা করবে। বিশেষ করে প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের কাছে বই পৌঁছে দেওয়ার ক্ষেত্রে নগদ বিশেষ ভুমিকা রাখবে। 

এ ছাড়া বাংলা একাডেমির নির্বাহী পরিষদের পাঁচ হাজার সদস্যের বার্ষিক ফি সংগ্রহসহ অন্যান্য আর্থিক সেবাও পরিশোধ করা যাবে নগদের মাধ্যমে। ফলে সারাদেশে অবস্থানরত বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, উপ-উপাচার্য, বিভিন্ন কলেজের অধ্যক্ষসহ এমন প্রায় পাঁচ হাজার নির্বাহী পরিষদের সদস্যরা ঘরে বসেই তাদের বার্ষিক ফি পরিশোধ করতে পারবেন। এ চুক্তির ফলে আগামী অমর একুশে বইমেলায়ও মিলবে নগদের এই পেমেন্ট সুবিধা।

ডাক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. সিরাজ উদ্দিন বাংলা একাডেমিকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, বাংলা একাডেমির সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। আগে ডাক বিভাগের মোবাইল মানি অর্ডার ছিল, যার রূপান্তরিত ভার্সন এখন নগদ।

নগদদের নির্বাহী পরিচালক মো. সাফায়েত আলম বলেন, ভাষা ও সাহিত্যচর্চার জন্য বাংলা একাডেমি একটি অনন্য সাধারণ প্রতিষ্ঠান। এমন একটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আমরা কাজ করতে পেরে আনন্দিত। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি