দেশে বিয়েবিচ্ছেদের সংখ্যা বেড়ে যাওয়া নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে মহিলা ও শিশুবিষয়ক সংসদীয় কমিটি। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সুপারিশও করেছে কমিটি। গতকাল রোববার সংসদ ভবনে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে এ বিষয়ে আলোচনা হয়।
কমিটির সভাপতি মেহের আফরোজের সভাপতিত্বে বৈঠকে সদস্য ফজিলাতুন নেসা, শবনম জাহান, লুৎফুন নেসা খান, সাহাদারা মান্নান ও কানিজ ফাতেমা আহমেদ অংশ নেন।
সংশ্নিষ্টরা জানান, সংসদীয় কমিটির আগের বৈঠকে বিবেবিচ্ছেদ বেড়ে যাওয়া নিয়ে আলোচনা হয়। সংরক্ষিত আসনের এমপি বেগম লুৎফুন নেসা খান প্রসঙ্গটি উত্থাপন করেন। তিনি বিয়েবিচ্ছেদের হার অত্যধিক বেড়ে যাওয়া এবং মাদকের কারণে বহু পরিবার ভেঙে যাওয়ার কথা জানান। তবে ওই বৈঠকে কোনো সুপারিশ আসেনি। গতকালের বৈঠকে এ বিষয়ে সুপারিশ করা হয়।
এ বিষয়ে লুৎফুন নেসা বলেন, বিয়েবিচ্ছেদের মূল তিন কারণ ড্রাগস, বিয়েবহির্ভূত সম্পর্ক ও আকাশ সংস্কৃতি। সোশ্যাল মিডিয়া, যেমন ফেসবুক-টিকটক সমাজে চরম অবস্থার সৃষ্টি করেছে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা এসব সোশ্যাল মাধ্যম নিয়ে মানুষ ব্যস্ত থাকে। স্বামী অন্য নারী, স্ত্রী অন্য পুরুষের প্রতি আসক্ত হয়ে পড়ে। একটা পর্যায়ে নিজের সংসার ভেঙে যায়।
বিয়েবিচ্ছেদ কমানোসহ সামাজিক অস্থিরতা বন্ধে এলাকাভিত্তিক কাউন্সিলর (সাইকোলজিস্ট) নিয়োগের পরামর্শ দিয়েছেন উল্লেখ করে সংরক্ষিত আসনের এ এমপি বলেন, অনেক সময় স্বামী-স্ত্রী বা তাদের পরিবারের সদস্যরা সমস্যা সমাধানে ব্যর্থ হন। এ ক্ষেত্রে সাইকোলজিস্টের শরণাপন্ন হলে তারা বিভিন্ন ধরনের কাউন্সেলিংয়ের মাধ্যমে একটা সমাধান বের করতে পারেন।