বাংলাদেশি নাগরিক সেজে পাসপোর্ট করতে গিয়ে মিয়ানমার থেকে বাস্তুচ্যুত এক রোহিঙ্গা তরুণীকে আটক করা হয়েছে। সোমবার চট্টগ্রাম নগরের মনসুরাবাদের বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস থেকে আটকের পর তাকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আটক জুরাইয়া বিবি ওরফে জোবাইদা খানম (১৯) কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নিবন্ধিত শরণার্থী।

পাসপোর্ট অফিস সূত্র জানায়, জোবাইদা খানম নামে ওই তরুণী সীতাকুণ্ড উপজেলার সলিমপুর এক নম্বর ওয়ার্ডের ঠিকানা উল্লেখ করে পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেন। এতে তার বাবার নাম সৈয়দ নূর ও মার নাম সলেমা খাতুন উল্লেখ করা হয়। আবেদনের সঙ্গে নিজের জন্মসনদ ও মায়ের জাতীয় পরিচয়পত্র জমা দেওয়া হয়।

তার জন্মসনদে জন্মস্থান চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলা উল্লেখ রয়েছে। জন্মসনদটি সার্ভারেও সংরক্ষিত রয়েছে। তার মায়ের জাতীয় পরিচয়পত্রের নামের সঙ্গে এনআইডি সার্ভারের সংরক্ষিত তথ্যের মধ্যে মিল নেই।

চট্টগ্রামের বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিসের পরিচালক মো. আবু সাইদ বলেন, কথাবার্তায় ওই তরুণীকে আমাদের সন্দেহ হয়। আঙুলের ছাপ যাচাই করে দেখা যায়, তিনি ২০১৭ সালের ১২ সেপ্টেম্বর জুরাইয়া বিবি নামে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নিবন্ধিত। তখন তার বয়স ছিল ১৫ বছর। এরপর জিজ্ঞাসাবাদে তিনি মিয়ানমার থেকে বাস্তুচ্যুত হয়ে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আশ্রয় নেওয়ার কথা স্বীকার করেন। আটক তরুণীকে নগরীর ডবলমুরিং থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাখাওয়াৎ হোসেন বলেন, আটক তরুণীর তথ্য যাচাই-বাছাই করে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পরে তদন্তে কীভাবে জন্মসনদ পেলেন তা খতিয়ে দেখা হবে।