জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৩তম জন্মবার্ষিকীর মূল আয়োজনটি কবির স্মৃতিবিজড়িত কুমিল্লায় আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়।

এছাড়া ঢাকার নজরুল ইনস্টিটিউট, ময়মনসিংহের ত্রিশাল, কুমিল্লার দৌলতপুর, মানিকগঞ্জের তেওতা, চুয়াডাঙ্গার কার্পাসডাঙ্গা এবং চট্টগ্রামেও জাতীয় কবির জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজন রেখেছে মন্ত্রণালয়।

মঙ্গলবার সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত জানান সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

তিনি জানান, এ বছর জাতীয় কবির জন্মবার্ষিকীর মূল অনুষ্ঠান হবে নজরুল স্মৃতিবিজড়িত কুমিল্লায়। 

কুমিল্লার বীরচন্দ্র গণপাঠাগার ও নগর মিলনায়তন প্রাঙ্গণে বুধবার সকাল ১১টায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সিমিন হোসেন (রিমি), কুমিল্লা-৬ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আ. ক. ম. বাহাউদ্দিন বাহার ও কবির নাতনী খিলখিল কাজী। 

স্মারক বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকবেন অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক ও নজরুল গবেষক শান্তি রঞ্জন ভৌমিক। 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির পরিবেশনায় নৃত্যনাট্যসহ ৩০ মিনিটের সাংস্কৃতিক পর্ব থাকবে।

ঢাকার নজরুল ইনস্টিটিউটের পাশাপাশি স্থানীয় প্রশাসনের ব্যবস্থাপনায় জাতীয় কবির স্মৃতিবিজড়িত ময়মনসিংহের ত্রিশাল, কুমিল্লার দৌলতপুর মানিকগঞ্জের তেওতা, চুয়াডাঙ্গার কার্পাসডাঙ্গা এবং চট্টগ্রামে কবির জন্মবার্ষিকী উদযাপন করা হবে। 

এ উপলক্ষে নজরুল মেলা, নজরুল বিষয়ক আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করবে স্থানীয় প্রশাসন।

ত্রিশালের দরিরামপুরে ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসনের তিন দিনের আয়োজনের প্রথম দিনের আয়োজনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আশরাফ আলী খান খসরু। নজরুল স্মারক বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকবেন জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. এ. কে. এম. শামসুদ্দিন চৌধুরী। 

পরের দুদিনের আয়োজনে স্মারক বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিশিষ্ট লেখক ও নজরুল গবেষক এ এফ এম হায়াতুল্লাহ ও জাতীয় কবির দৌহিত্রী খিলখিল কাজী।

বুধবার চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গায় দুই দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধন করবেন চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য মো. আলী আজগার।

চট্টগ্রাম শিল্পকলা একাডেমি ও মানিকগঞ্জের তেওতায় দিনব্যাপী আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানো আয়োজন করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

বুধবার ঢাকার কবি নজরুল ইনস্টিটিউট আয়োজিত আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন কবি কামাল চৌধুরী। 

এ বছর জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৩তম জন্মবার্ষিকী উদযাপনের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে-বিদ্রোহী'র শতবর্ষ। 

কবি নজরুল ইনস্টিটিউট বাংলা একাডেমির সহযোগিতায় জাতীয় কবির জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণিকা ও পোস্টার মুদ্রণ করেছে। 

বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসগুলোতেও থাকছে নানা আয়োজন।