বাংলাদেশ দলের টেস্ট নেতৃত্ব ছাড়ার ইচ্ছা পোষণ করেছেন মুমিনুল হক। ব্যাটিং পারফরম্যান্স খারাপ যাওয়ায় নেতৃত্বের চাপ থেকে মুক্তি চান তিনি। দলের টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন মনে করেন, মুমিনুলের সিদ্ধান্তকে সম্মান করা উচিত। তার জায়গায় সাকিব দায়িত্ব নিলে দলের পরিবেশ ভালো হবে বলেও মনে করেন তিনি। 

বুধবার সংবাদ মাধ্যমকে সাবেক অধিনায়ক ও টিম ডিরেক্টর সুজন বলেন, ‘সাকিব এখন অনেক বেশি টেস্ট খেলতে চায়। জানি না, কেন টেস্ট খেলতে চায় না বলা হয়। সাকিব টেস্ট খেলতে চায়লে তাকে দায়িত্ব দিলে ভালো হবে। দলে পরিবর্তন আসতে পারে। দলের পরিবেশও ভালো হবে। কে হবে জানি না। তামিম-মুশফিকও আছে নেতৃত্ব নেওয়ার জন্য।’ 

নেতৃত্ব ছাড়তে চাওয়া মুমিনুলকে দায়িত্বে রাখা ঠিক হবে না বলেও মনে করেন সুজন। টিম ডিরেক্টর মনে করেন, মুমিনুলের নেতৃত্ব ছাড়ার সিদ্ধান্তকে সম্মান করা উচিত। তার নেতৃত্বের চেয়ে ব্যাটিং দলের বেশি দরকার। নেতৃত্ব দিতে গিয়ে সুজনেরও পারফরম্যান্সে প্রভাব পড়েছিল বলে উল্লেখ করেন তিনি। 

এছাড়া তিনি চান, দায়িত্ব যাকেই দেওয়া হোক দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা করে দেওয়া হোক। সাকিব-তামিম যেই আসুক অন্তত দুই বছর তাকে দায়িত্বে দেখতে চান তিনি। বাংলাদেশ দলে সহ-অধিনায়ক দেওয়ার কথাও জানিয়েছেন টিম ডিরেক্টর। দল নিয়ে চিন্তা করবে, গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তে অংশগ্রহণ থাকবে, ভবিষ্যতে দলকে নেতৃত্ব দিতে পারবে এমন কাউকে চান তিনি। 

সুজন বলেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজের পরে এবং আগামী টি-২০ বিশ্বকাপের আগে একটি টি-২০ সিরিজ থাকবে। বোর্ড স্বল্পমেয়াদি কাউকে দায়িত্ব দেওয়ার কথা ভাবতে পারে। তবে আমি চাই, যেই দায়িত্ব নিক, অন্তত দুই বছর কাজ করুক। এখন থেকে সহ-অধিনায়ক দেওয়ার কথাও ভাবা হচ্ছে। দল বিল্ডআপের দরকার আছে।’  

টেস্টে অনিয়মিত হয়ে পড়েছিলেন সাকিব। তবে এখন থেকে নিয়মিত টেস্ট খেলার ইচ্ছার কথা বলেছেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। তাকেও নেতৃত্ব দিয়ে বেধে রাখার চেষ্টা করছে বোর্ড। সুজনের ভাষ্য মতে, সাকিব টেস্ট এখন এনজয় করছে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঢাকা টেস্টেও অনেক বোলিং করেছে। বিদায় নেওয়ার আগে টেস্টেও দলকে এগিয়ে দিয়ে যাওয়ার সুযোগ আছে তার সামনে।