ওয়েস্ট ইন্ডিজের কন্ডিশন প্রতিপক্ষের জন্য প্রায়ই ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠে। অ্যান্টিগায় সেটা আরও বেশি। দমকা বাতাসে ক্যারিবীয় পেসারদের ছোড়া বল ফণা তোলে। গ্রানাডায় সর্বশেষ টেস্টে ইংল্যান্ডকে ধসিয়ে ছেড়েছে তারা। 

তবে ওয়েজ ইন্ডিজ অধিনায়ক ক্রেগ ব্রাথওয়েটের জন্য চ্যালেঞ্জ অনভিজ্ঞ বোলিং আক্রমণ নিয়ে খেলা। কেমার রোচ, জেমন হোল্ডাররা নেই এই সিরিজে। নেই রোস্টন চেজের মতো স্পিন অলরাউন্ডার। অনভিজ্ঞ পেসার অ্যান্ডারসন ফিলিপ ও বাঁ-হাতি স্পিনার গুডাকেশ মতির ওপর ভরসা করতে হচ্ছে তার। 

তবে কন্ডিশনের সুবিধা নিয়েই তারা কঠিন পরীক্ষা নিতে পারে বাংলাদেশ দলের ব্যাটারদের। অ্যান্টিগার কন্ডিশনে শুরু থেকে পেসাররা সুবিধা পাবেন। তিন দিন পর্যন্ত ওই সুবিধা পেসারদের পক্ষে যেতে পারে। শুরুতে আকাশ মেঘলা থাকার পূর্বাভাস আছে। বিপদের কারণ হতে পারে সেটাও। 

অন্যদিকে বাংলাদেশ দলের চ্যালেঞ্জ সাকিব আল হাসানের অধীনে টেস্টে নতুন শুরুর। তৃতীয়বারের মতো টেস্ট নেতৃত্ব নিয়েছেন দেশ সেরা ক্রিকেটার। তার অধীনে দলের পরিকল্পনা, কৌশলে পরিবর্তন আসতে পারে। তবে আপাতত এই সিরিজে খুব বেশি পরিবর্তন দেখতে পাওয়ার সম্ভাবনা নেই। 

সাকিবকে তার নতুন শুরুটা টেস্টে দেশের সেরা ব্যাটার মুশফিকুর রহিমকে ছাড়া করতে হচ্ছে। সঙ্গে পেস আক্রমণে তাসকিন-শরিফুল নেই। ওদিকে রান পাচ্ছেন না মুমিনুল হক। তবে মুস্তাফিজের টেস্টে ফেরার বিষয়টি তার জন্য স্বস্তির হতে পারে। 

অ্যান্টিগা টেস্টে সাকিবকে বড় সিদ্ধান্ত নিতে হবে লিটন দাসের ব্যাপারে। বাঁ-হাতি অলরাউন্ডারের ডেপুটি লিটন। তাকে মুশফিকের অনুপস্থিতিতে উইকেটকিপিং করাবেন নাকি ব্যাটিং অর্ডারে উপরে আনবেন। সাকিব নিজে ছয়ে নাকি সাতে ব্যাটিং করবেন সেটা দেখতেও অপেক্ষা করতে হবে।