আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রামের (আইআইইউসি) ১০ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কারসহ বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়। 

এদিকে বন্ধ থাকা বিশ্ববিদ্যালয় আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি খোলার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

আইআইইউসির জনসংযোগ কর্মকর্তা মোশতাক খন্দকার বলেন, সিন্ডিকেট সভায় দুই ছাত্রকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। এ ছাড়া দুই ছাত্রকে দুই বছর, তিন ছাত্রকে এক বছর ও তিন ছাত্রকে এক সেমিস্টারের জন্য বহিষ্কার করেছে কর্তৃপক্ষ। র‌্যাগিং, শিক্ষককে লাঞ্ছনা ও শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে তাদের বিভিন্ন মেয়াদে এ শাস্তি দেওয়া হয়।

স্থায়ীভাবে বহিষ্কৃত ছাত্ররা হলো উচো মারমা ও অনিক ইসলাম। দুই বছরের জন্য বহিস্কৃত হয়েছে মো. মশিউর রহমান ও ওমর ফারুক তুহিন। এক বছরের জন্য বহিষ্কৃত ছাত্ররা হলো- হাসান হাবিব মুরাদ, রবিউল হোসেন রনি ও শফিউল আলম। এক সেমিস্টারের জন্য বহিষ্কৃতরা হলো- এফজাজুল হক অমি, আবদুল্লাহ আল তাশরীফ ও আবদুল্লাহ আল নাঈম।

আইআইইউসি ছাত্রলীগের সাংগঠনিক দায়িত্বে থাকা উচো মারমা বলেন, বহিষ্কৃত ছাত্ররা সবাই ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কোনো বহিষ্কার আদেশ তারা হাতে পায়নি। বহিষ্কারাদেশ হাতে পেলে পরবর্তী কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে।

গত ২৭ জানুয়ারি ছাত্রলীগ কর্মীরা এক শিবির কর্মীকে মারধর করার ঘটনায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেলে সিন্ডিকেট সভায় বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়। পরে আহত ওই শিবির কর্মী ছাত্রলীগের ১১ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করেন।