জয়পুরহাটে ৬ষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রীকে অপহরণ ও ধর্ষণের চেষ্টার মামলায় মফিজুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তিকে ৪০ বছরের কারাদণ্ডের রায় দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকেলে জেলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক রুস্তম আলী এ রায় ঘোষণা করেন।

আদালত ৩২ বছর বয়সী মফিজুলকে একই সঙ্গে  দেড় লক্ষ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো দেড় বছর কারাদণ্ডের আদেশ দেন। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি ক্ষেতলাল উপজেলার তেলাবদুল মুন্সিপাড়া গ্রামের আওলাদ হোসেনের ছেলে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১৮ সালের ৯ আগষ্ট বিকেলে জয়পুরহাট শহরের নিউ মার্কেট থেকে অটোরিক্সায় বাড়ি যাওয়ার সময় মফিজুল ইসলাম ওই ছাত্রীকে ফুসলিয়ে শহরের করিম নগর এলাকায় একটি নির্জন বাঁশঝাড়ে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে।

এ সময় ওই ছাত্রী চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হতে থাকলে মফিজুল সেখান থেকে পালিয়ে যায়। পরে এ ঘটনা তার পরিবারকে জানায় এই ছাত্রী।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পৌর এলাকার একটি সিসিটিভি ফুটেজের মাধ্যমে শনাক্ত করে মফিজুল ইসলামকে আসামি করে ২৩ আগষ্ট সদর থানায় একটি মামলা করেন ওই ছাত্রীর বাবা। দীর্ঘ শুনানি শেষে মঙ্গলবার বিকেলে বিচারক মামলার রায় ঘোষণা করেন।

জয়পুরহাট নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিশেষ কৌঁসুলি (পিপি) অ্যাডভোকেট ফিরোজা চৌধুরী এ রায়ের তথ্য নিশ্চিত করেছেন।