দুর্গাপূজার সময়ে সাম্প্রদায়িক সংঘর্ষের বিষয়ে কূটনৈতিক প্রেক্ষাপট থেকে রাষ্ট্রের মুখপাত্র হিসেবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেনের দেওয়া বক্তব্যকে 'কৌশলগত' বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোট। 

শুক্রবার বিকেলে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন জাতীয় হিন্দু মহাজোটের মহাসচিব গোবিন্দ চন্দ্র প্রামাণিক।

তিনি বলেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের বিষয়ে যৌক্তিক বিরোধিতার বদলে বিভিন্ন সংগঠন দেশে-বিদেশে পরিকল্পিতভাবে অশালীন ও অশোভন বক্তব্যের মাধ্যমে সংবাদ সম্মেলন ও ধিক্কার মিছিল আয়োজন করেছে। এসব কর্মসূচিতে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করা হয়েছে, যা খুবই দুঃখজনক।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, দেশে হিন্দু সম্প্রদায়ের বিপদের মুহূর্তে তাদের পাশে দাঁড়ানো, হিন্দুদের বিভিন্ন যৌক্তিক দাবি-দাওয়া উপস্থাপন ও বাস্তবায়নে নিয়মতান্ত্রিক পদক্ষেপ গ্রহণ ও সার্বিক সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় কার্যকর ভূমিকা পালনের বদলে বাংলাদেশকে সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের অভয়ারণ্য হিসেবে চিহ্নিত করতে গোপন ষড়যন্ত্র করছে এসব সংগঠন। যারা বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশকে সহিংস দেশ হিসেবে উপস্থাপন করছে, তারা হিন্দুধর্মের চেতনাবিরোধী। দেশের অভ্যন্তরীণ কোনো ঘটনা বিশ্ব দরবারে নেতিবাচকভাবে উপস্থাপন করে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করা কোনো সমাধান নয়। বরং নিজের দেশকে প্রশ্নবিদ্ধ করা মানে নিজেদের বিনাশকে ত্বরান্বিত করা।

বাংলাদেশকে বিশ্ব দরবারে নেতিবাচকভাবে উপস্থাপন করে এমন কোনো কর্মসূচিতে হিন্দু মহাজোট অংশগ্রহণ করে না উল্লেখ করে সংবাদ সম্মেলনে নেতারা বলেন, এসব কর্মসূচি আমরা সমর্থন করি না। এ সময় হিন্দু মহাজোটের সদস্য ও শুভানুধ্যায়ীদের কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশনায় সাংগঠনিক কর্মসূচি ছাড়া দেশে ও বিদেশে এ ধরনের বিতর্কিত কর্মসূচিতে অংশ না নিতে অনুরোধ জানানো হয়।