মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এমপি বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের মাধ্যমে বাংলাদেশের স্বাধীনতা পূর্ণতা পেয়েছিল।

সোমবার পিরোজপুরের নাজিরপুরের বরইবুনিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে  আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বরইবুনিয়া আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি প্রণয় কুমার রায়ের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন নাজিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ আব্দুল্লাহ সাদীদ, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর পিরোজপুরের নির্বাহী প্রকৌশলী বলরাম মন্ডল, গণপূর্ত অধিদপ্তর পিরোজপুরের নির্বাহী প্রকৌশলী তৌহিদুল ইসলাম, নাজিরপুর এলজিইডির উপজেলা প্রকৌশলী জাকির হোসেন, পিরোজপুর জেলা যুবলীগের সভাপতি আখতারুজ্জামান ফুলু , পিরোজপুর জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক গোপাল বসু প্রমুখ।

শ ম রেজাউল করিম বলেন, ‘স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে আমাদের বঙ্গবন্ধুর আদর্শ অনুসরণের জন্য প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হতে হবে, আমাদের মনে রাখতে হবে বঙ্গবন্ধু ছাড়া স্বাধীনতা অর্জন সম্ভব হতো না। তিনি ছাড়া বাংলাদেশ অসম্পূর্ণ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা অসম্পূর্ণ। বঙ্গবন্ধুকে বাদ দিয়ে লাল-সবুজের পতাকাই কল্পনা করা যায় না। অসম্প্রাদায়িক বাংলাদেশ চিন্তা করা যায় না। সেজন্য দল-মতের পার্থক্য থাকলেও বঙ্গবন্ধুর প্রতি আমাদের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা রাখতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু ফিরে না এলে পৃথিবীর যে রাষ্ট্রগুলো বাংলাদেশকে রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছিল, তা সম্ভব হতো না। বঙ্গবন্ধু ফিরে না আসলে যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশ পুনর্গঠন হতো না। স্বাধীনতাবিরোধীরা আবার মাথাচাড়া দিয়ে উঠতো।’

তিনি আরও বলেন, ‘আজ বাংলাদেশে যুদ্ধাপরাধীদের দাম্ভিকতা নেই। বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিচার হয়েছে। নিজের টাকায় পদ্মা সেতু হচ্ছে, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে হচ্ছে, মেট্রোরেল হচ্ছে, নদীর তলদেশ দিয়ে টানেল হচ্ছে। সব বঙ্গবন্ধুর কারণেই।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু আমাদের মধ্যে না থাকলেও তার বিশ্বাস ও আদর্শ আমাদের মধ্যে রয়েছে। শেখ হাসিনার মধ্যেই আমরা বঙ্গবন্ধুকে খুঁজে পাই।’

এর আগে মন্ত্রী নাজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের জন্য কোভিড-১৯ টিকা প্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। পরে তিনি মাটিভাঙ্গা ইউনিয়নে কৃষক সেবা কেন্দ্রের তিনতলা ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন এবং এলাকাবাসীর জন্য  বিশুদ্ধ পানি সরবরাহে রিভার্স অসমোসিস প্ল্যান্টের উদ্বোধন করেন। নাজিরপুর উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে দুস্থ মানুষদের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে প্রাপ্ত শীতবস্ত্র বিতরণ, মৎস্য অধিদপ্তরের আওতায় ইলিশ সংরক্ষণ মৌসুমে বিকল্প কর্মসংস্থান হিসেবে জেলেদের মধ্যে প্রণোদনার গবাদিপশু বিতরণ ও মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির সদস্যদের মধ্যে ট্রলার বিতরণ এবং সমাজসেবা অধিদপ্তরের আওতায় প্রতিবন্ধী ও দুস্থদের মধ্যে হুইল চেয়ার ও অনুদানের চেক বিতরণ করেন মন্ত্রী।