পত্রিকা খুললেই পরীমণি, খুকুমণি আর দীপু মনিদের কাহিনি দেখা যায় বলে মন্তব্য করেছেন মৌলভীবাজার-২ আসনের সংসদ সদস্য সুলতান মোহাম্মদ মনসুর।

তিনি বলেছেন, ‘নতুন প্রজন্মের জন্য একটি সমৃদ্ধ বাংলাদেশ উপহার দেওয়া জাতীয় কর্তব্য। কিন্তু পত্রিকা খুললেই পরীমণি, খুকুমণি আর দীপু মনিদের কাহিনি দেখলে বাংলাদেশের বর্তমান প্রজন্ম, নতুন প্রজন্ম হতাশ হয়। লেলিয়ে দেওয়া হচ্ছে পরীমণি আর খুকুমণিদের। এতে কাদের নেতৃত্ব দূষিত হয়? সমাজ দূষিত হয়? এটি একটি ষড়যন্ত্র।’

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদের ১৬তম অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

বৃহস্পতিবার শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির ঘনিষ্ঠজনদের চাঁদপুরে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য ভূমি অধিগ্রহণে কারসাজি করে ৩৫৯ কোটি টাকা বাড়তি নেওয়ার চেষ্টার অভিযোগ নিয়ে সংবাদমাধ্যমে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

এছাড়া শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনে বিশ্ববিদ্যালয়টির সাবেক অধ্যাপক জাফর ইকবাল ও তার স্ত্রী অধ্যাপক ইয়াসমিন হক অনশন ভাঙান শিক্ষার্থীদের।

এ প্রসঙ্গ টেনে সুলতান মনসুর বলেন, জাফর ইকবাল গিয়ে অনশন ভাঙিয়েছেন। সেখানে রাজনৈতিক নেতৃত্ব ছিলেন না। জাফর ইকবালকে সেখানে পাঠানোর জন্য সংসদ নেত্রী ব্যবস্থা করেছেন নিশ্চয়। এছাড়া বলেন, জনগণই সব ক্ষমতার উৎস। এ বিশ্বাস থাকলে জনগণকে নিয়েই এগোতে হবে। রাজনীতিবিদদের নিয়েই রাজনীতিকে এগিয়ে নিতে হবে।