প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদ ও ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েলের শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। অন্যদিকে, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদ ও কেন্দ্রীয় ছাত্রদল সভাপতিকে পুলিশের হয়রানির প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল।

সোমবার সকালে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইব্রাহিম ফরাজি ও সাধারণ সম্পাদক এস এম আকতার হোসাইনের নেতৃত্বে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেন নেতাকর্মীরা। ছাত্রলীগের সমাবেশ থেকে ছাত্রদলকে সন্ত্রাসী আখ্যা দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে তাদের অবাঞ্চিত ঘোষণা করেন তারা।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইব্রাহিম ফরাজী বলেন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ স্বাধীনতাবিরোধী সকল অপশক্তির ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন বাস্তবায়নে সর্বদা প্রস্তুত আছি। ছাত্রদলের সন্ত্রাসীরা আমাদের নেত্রীকে নিয়ে যে কটূক্তি করেছে, তার উত্তম জবাব দেওয়া হবে।

একই সময়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সভাপতি পদপ্রার্থী শামসুল আরেফিনের নেতৃত্বে মিছিল ক্যাম্পাস-সংলগ্ন এলাকায় হয়। মিছিলটি ভিক্টোরিয়া পার্ক থেকে শুরু হয়ে রায়সাহেব বাজার মোড়ে শেষ হয়। সকাল সাড়ে ৯টায় শাখা ছাত্রদলের সভাপতি প্রার্থী মেহেদী হাসান হিমেলের নেতৃত্বে আরেকটি মিছিল বের হয়। মিছিলটি রায়সাহেব বাজার থেকে শুরু হয়ে নবাবপুর রোডে গিয়ে শেষ হয়। মিছিল-পরবর্তী সমাবেশে ছাত্রদল নেতারা ছাত্রলীগকে রাজপথে মোকাবেলার হুঁশিয়ারি দেন।

এ সময় সমাবেশে শামসুল আরেফিন বলেন, প্রধানমন্ত্রীর মতো জায়গায় থেকে সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে যে মন্তব্য করা হয়েছে, তা প্রত্যাহার করতে হবে। ছাত্রদল সভাপতির ওপর পুলিশের হামলা-মামলা বন্ধ করতে হবে। অন্যথায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল রাজপথে জবাব দেবে।