গুচ্ছ ‘বি’ ইউনিটের (মানবিক শাখা) ভর্তি পরীক্ষায় প্রক্সি দেওয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তার মো. আকতারুল ইসলামকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। রোববার ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ নুরুল হুদার আদালত এ আদেশ দেন। 

এদিন আসামিকে আদালতে হাজির করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক মো. নাহিদুল ইসলাম। মামলার রহস্য উদঘাটন ও সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে আসামির সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করেন তিনি। তবে আদালত আসামিকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। একইসঙ্গে এ রিমান্ড শুনানির জন্য আগামী মঙ্গলবার দিন ধার্য করেন আদালত।

এর আগে শনিবার জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. মো. রইছ উদদীন বাদী হয়ে তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। এ মামলার আসামিরা হলেন, মূলহোতা মো. রাব্বি, প্রক্সি দিতে আসা শিক্ষার্থী মো. আকতারুল ইসলাম ও মূল শিক্ষার্থী সিজান মাহফুজ।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, গত ১৩ আগস্ট জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছভুক্ত 'বি' ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এ পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী ছাত্র-ছাত্রীদের প্রবেশপত্রসহ অন্যান্য কাগজপত্র যাচাই করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর মো. মহিউদ্দিনের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হয়। এ কমিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন ভবনের একটি কক্ষের পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী পরিক্ষার্থীদের প্রবেশপত্রসহ অন্যান্য কাগজপত্র যাচাই করছিলেন।

এ সময় আকতারুল ইসলাম নামে এক পরীক্ষার্থীর প্রবেশপত্র ও সংযুক্ত ছবির সাথে তার চেহারার মিল না থাকার বিষয়টি পরিলক্ষিত হয়। পরবর্তীতে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে জানায়, পলাতক আসামি সিজান মাহফুজ ও মূলহোতা রাব্বির পরামর্শ, প্ররোচণা ও সহযোগিতায় এক লাখ ৪০ হাজার টাকার চুক্তিতে সে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে।