প্রিয়াঙ্কাকে বাঁচাতে সাহায্য দরকার

প্রকাশ: ০২ অক্টোবর ২০১৯     আপডেট: ০২ অক্টোবর ২০১৯      

বিনোদন প্রতিবেদক

লাইফ সাপোর্টে আছেন মডেল ও অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা জামান। তবে গত কয়েকদিনের চেয়ে অবস্থা ভালো বলে জানালেন তার বড় বোন লিজা জামান। সমকাল অনলাইনকে তিনি জানান, প্রিয়াঙ্কা কিছুটা নড়াচড়া করছে। তবে শ্বাস নিতে পারছেনা। কথাও বলতে পারছে না। কৃত্রিম উপায়ে অক্সিজেন দেওয়া হচ্ছে তাকে।

চিকিৎসকের বরাত দিয়ে লিজা জামান জানান, শ্বাস নেয়ার প্রক্রিয়া স্বাভাবিক হতে আরও কিছুদিন লাগবে। তাই কিছুদিন তাকে লাইফ সাপোর্টেই রাখতে হবে। 

বুধবার নিজের ছোট বোনের কথা বলতে বলতে কেঁদে ফেলেন লিজা। বলেন, 'আমার বোনকে এভাবে দেখবো কখনও কল্পনাও করিনি। আমি তাকে ডাকছি সে সাড়া দিচ্ছে না। চোখও খুলছে না। আল্লাহ জানে এভাবে বোনটাকে আর কত দিন থাকতে হবে’

প্রিয়াঙ্কা জামান ২০১৩ সালে বিটিভির চলচ্চিত্রের গান নিয়ে অনুষ্ঠান ‘ছায়াছন্দ’ উপস্থাপনার মধ্য দিয়ে মিডিয়ায় পা রাখেন। এরপর অনেক নাটকে অভিনয় করেন। বিভিন্ন পণ্যের বিজ্ঞাপনচিত্র ও জনপ্রিয় সংগীতশিল্পীদের গানের মিউজিক ভিডিওতে মডেল হয়েছেন। বুলবুল ললিতকলা একাডেমিতে নাচ শেখেন তিনি। 

বেশ কিছুদিন আগে তার রক্তে মারাত্মক সংক্রমণ দেখা দেয়। গত ২৬ সেপ্টেম্বর তাকে  রাজধানীর ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরিস্থিতির দ্রুত অবনতি হলে তাকে স্কয়ার হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ) ভর্তি করা হয় প্রিয়াঙ্কাকে। 

চিকিৎসক জানিয়েছেন, প্রথম দিকে  প্রিয়াঙ্কার রক্তে যে সংক্রমণ ছিল, তা এখন অনেকটা নিয়ন্ত্রণে আছে। কিন্তু নতুন করে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হওয়ায় বিষয়টা একটু জটিল হয়ে গেছে। হৃদ্‌যন্ত্র তুলনামূলক কম কাজ করছে। তবে শরীরের অন্যান্য অঙ্গ কাজ করছে। 

এদিকে চিকিৎসার খরচ জোগাতে হিমশিম খাচ্ছে প্রিয়াঙ্কা জামানের পরিবার। আরও বেশ কিছুদিন লাইফ সাপোর্টে রাখতে হবে বিধায় অনেক টাকার প্রয়োজন। তাই সবার কাছে আর্থিক সাহায্য চেয়েছে প্রিয়াঙ্কার পরিবার। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক স্ট্যাটাসে প্রিয়াঙ্কার বড় বোন লিজা বলেন, ‘ডাক্তার বলেছেন, ওকে আরও অনেক দিন লাইফ সাপোর্টে আইসিইউতে রাখতে হবে। আমরা দিনে দিনে অসহায় হয়ে পড়ছি। প্লিজ প্রিয়াঙ্কাকে বাঁচাতে একটু এগিয়ে আসুন সবাই, আমার বোনটাকে বাঁচান।’

এই পরিস্থিতেও প্রিয়াঙ্কার ইমো নাম্বার হ্যাকড করা হয়েছে বলে জানান লিজা। তাই সাহায্যের বিষয়ে পিয়াঙ্কার বাবার দুটি নম্বর (০১৯১৭৮৯৪৭০৫ এবং ০১৭৪১২৩৫৩৩২) দিয়েছেন তিনি।