বড় পর্দা থেকে বেশ কিছুদিন হলো দূরে আছেন তারকা অভিনেত্রী মডেল ও উপস্থাপক পূণিমা। সেই দূরত্ব ঘুচিয়ে আনার অপেক্ষায় আছেন তিনি।

সমকালকে একথা জানিয়ে পূণিমা বলেন, নিজেও অপেক্ষায় আছি আবার নিজেকে বড়পর্দায় দেখার। কিন্তু কবে সে সুযোগ হবে তা আগেই বলতে পারছি না।

তিনি বলেন, চাইলে হয়তো যে কোনো সময় অভিনয় করতে পারতাম। কিন্তু আমি চাই। ভক্তরা অনেক দিন মনে রাখবে এমন কিছু ছবিতে অভিনয় করতে চাই।

যে ছবিতে নিজেকে ভিন্নরূপে তুলে ধরার সুযোগ নেই সে ধরনের ছবিতে আর কাজ করতে চান না বলেও জানান এই অভিনেত্রী। 

তিনি বলেন, এজন্যই কাজের মান নিয়ে সমঝোতা করি না।

'এবং পূর্ণিমা' অনুষ্ঠানে সাবলীল উপস্থাপনার জন্য প্রশংসা পাচ্ছেন। অথচ আগে কখনও উপস্থাপনা করেননি। কাজটি করার আগে প্রস্তুতি কেমন ছিল? এমন প্রশ্নে পূর্ণিমা বলেন, একজন অভিনেত্রী হিসেবে আমাদের তো বিভিন্ন সময় নানা চরিত্রে অভিনয় করতে হয়। সাংবাদিক, ডাক্তার আবার কখনও উকিলের। উপস্থাপনার বিষয়টিকেও সেভাবেই নিয়েছি।

তিনি বলেন, আমি ধরে নিয়েছি, এটা অভিনয়ের একটা অংশ। আর প্রস্তুতি বলতে পারেন বিভিন্ন অনুষ্ঠান দেখেই নিয়েছি। আমাদের দেশের যারা স্বনামধন্য উপস্থাপক আছেন তাদের কাজ দেখেছি। এ ছাড়াও দেশের বাইরে কফি উইথ করণসহ বেশকিছু টিভি শো দেখেছি।

টিভি নাটক পসঙ্গে পূর্ণিমা বলেন, বড়পর্দায় না হোক, এই ঈদের জন্য তিনটি ভিন্ন ধাঁচের নাটক ও টেলিছবিতে অভিনয় করেছি। এর মধ্যে মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজের 'হ্যালো ৯১১-লাভ ইমার্জেন্সি' টেলিছবিতে আমাকে একজন রেডিও জকির চরিত্রে দেখা যাবে। এ ধরনের চরিত্রে আগে কখনও অভিনয় করিনি। পাশাপাশি রাজিবুল ইসলাম রাজিবের পরিচালনায় 'রোদ্দুরে পেয়েছি তোমার নাম' টেলিছবিতে অভিনয় করেছি। ১০ জুন আবির খানের 'ম্যানিকুই' নাটকের সিক্যুয়ালে অভিনয় করব। এই তিনটি কাজই ভিন্ন ধাঁচের।