১৮ মাসের জার্নি শেষে গানে ফিরছেন রুমি

প্রকাশ: ২০ আগস্ট ২০১৮     আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮      

অনিন্দ্য মামুন

আর গান গাইবেন না আরফিন রুমি, শুধু ইসলামিক গান গাইবেন তিনি,  কিংবা কোথায় আছেন রুমি? গত প্রায় দুই বছর এমন শিরোনামেই গণমাধ্যমে এসেছেন বর্তমান প্রজন্মের জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী আরফিন রুমি। সত্যিই কী রুমির গান আর শুনতে পাবেন না ভক্তরা? এমন প্রশ্ন নিয়েই গত মার্চে যোগাযোগ করা হয় এ শিল্পীর সঙ্গে। তখন তিনি জানিয়েছিলেন ১৮ মাসের জন্য ব্রত পালন করছেন। এসময়টা শেষে গান নিয়ে নতুনভাবে ভাববেন।

সম্প্রতি শেষ হয়েছে সে ১৮ মাসের জার্নি। লম্বা এ সময় ব্রত পালন শেষে আরফিন রুমি সমকাল অনলাইনের সঙ্গে আলাপচারিতায় আবার গানে ফেরার কথা জানান। বলেন, ঈদের পরই ফিরছেন গানে। ব্রত পালনের কারণে ১৮ মাস সবকিছু থেকে দূরে ছিলেন। অন্য এক অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে গেছে প্রতিটি দিন। তবে শান্তিতে ছিলেন।

কী শিখলেন এই ১৮ মাসের জার্নিতে? এমন প্রশ্ন রাখতেই রুমি বলেন, 'প্রথমত আত্মার প্রশান্তি। আমরা সবার কথা শুনি কিন্তু নিজের  কথা শোনার সময় আমাদরে হাতে খুব কম থাকে। এই সময়টা নিজের কথা শুনেছি। নিজেই নিজের শাসক হতে শিখেছি। আর ইসলাম ধর্ম নিয়ে অনেক পড়াশোনা করেছি। ধর্ম পালনের মধ্য একধরনের প্রশান্তিতে রয়েছি। ধর্ম পালনের নিয়মনীতি শিখেছি। আরও অনেক কিছুই শেখা হয়েছে। সময়টা আমার জন্য উত্তম সময়।’ 

নিজের এতো খ্যাতি-যশ এগুলো ছেড়ে দূরে থাকতে তো খারাপ লাগার কথা। রুমির উত্তর, ‘মোটেও খারাপ লাগেনি। আসলে আমরা মানসিকভাবে যখন অশান্তিতে থাকি তখন খারাপ লাগে। আমি তো এই সময়টা শান্তিতে ছিলাম। যখন গান গেয়ছি তখন গান গেয়েই শান্তি পেয়েছি। এই সময় স্রষ্টার ইবাদতে থেকেছি। যশ-খ্যাতির কথা মনে আসেনি। তবে দেশের সংস্কৃতি জগতে আমরা যারা কাজ করছি তারা সবাই মিলে তো একটি পরিবার। সে হিসেবে মনে হয়েছে, আমি কোথাও বেড়াতে গিয়েছি। আমার জন্য একটা ট্যুর ছিল। যে ট্যুরে আমি ধর্মের হয়ে ধর্ম নিয়ে গবেষণা করেছি। আত্মশুদ্ধির পথে হেঁটেছি।' 

সুরের মানুষ আপনি। দীর্ঘ এ সময়টাতে কী মাথায় নতুন সুর খেলা করেনি? প্রশ্ন রাখতেই রুমি বলেন, ‘আসবেন না কেন? সময়টাতে  আমার মাথায় অনেক কাজও এসেছে, সুর এসেছে, কথা এসেছে। পরে আবার ইবাদতের যে টান, সে কারণে পারতাম না। তখন মনে হতো এখন যেহেতু এই সাবজেক্টে আছি, তাই আগে এই কাজটা করে নিই।'

কথায় কথায় রুমিকে জিজ্ঞেস করা হয়, শিল্পীরা নিয়মিত কাজে না থাকলে তো শ্রোতারা ভুলে যান। আপনার কী মনে হচ্ছে, ভক্তদের কাছে আগের মতোই ভালোবাসা পাবেন? দৃঢ়তা নিয়ে রুমি বলেন, 'আমার বিশ্বাস আরফিন রুমিকে কেউ ভুলে যাননি। কারণ আমি যখন ছোট বেলায় জেমস ভাইয়ের গান শুনতাম তখন এক রকম অনুভূতি ছিল। এখন কিন্তু তার নতুন কোনো গান বের হচ্ছে না। পুরনো গানগুলো এখনো ভালো লাগে। নতুন কিছু বের হলেও ভালো লাগে। কারণ আমি ওনাকে ভালোবাসি। আমার শৈশব থেকেই তার গানের প্রতি আলাদা ভাললাগা আছে। ওইটা যেহেতু মিস হয় না। আমার ধারণা আমার গান যারা শুনেছে তাদেরও মিস হয় না। ভোলার কিছু নাই। যখন গান আসে তখন এমন কিছু মনে হয়।'

১৮ মাসের জার্নিতে গান শোনা হয়েছে কী না বা গানের সঙ্গে সম্পর্ক কেমন ছিল- জানতে চাইলে রুমি বলেন, ‘সময়টাতে আমি শুধু ধর্মকর্ম করেছি। নিজেকে সময় দিয়েছি। আমি চেষ্টা করেছি গান শোনার। যে কাজগুলো করেছি, তা শুনতাম।’ 

রুমি গানে ফিরছেন এটি সত্যি। তবে  ঠিক কবে ফিরছেন?  নিশ্চিতভাবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, 'আজ  (১৯ আগস্ট) থেকেই আমি গানে ফেরার জন্য প্রস্তুত। আমি মনে করি, প্রত্যেকের একটা আসন আছে, জায়গা আছে। যে যার জায়গা যেভাবে করে নেয়। গানের জায়গার ক্ষেত্রে আমার জায়গা অনুযায়ী কাজ কম হয়েছে। আমার যে স্থান এখন রয়েছে সে স্থান অনুযায়ী যদি কেনো জায়গা আসে, সে রকম প্রফেশনাল কোনো কাজ আসে আমি করতে রাজি। আমার সাথে কারও লেনাদেন, দেনদরবার বা ঝামেলা নেই। আমি আগে যে রকম কাজ করতাম এখনও করব। শিগগিরই  নতুন একটি ছবির গান গাইব।'  

১৮ মাসের এ জার্নির মাঝপথে এসে আপনি শুধু ইসলামিক গানই করবেন বলে জানিয়েছিলেন। এমন সিদ্ধান্ত কেন ছিল? রুমি বলেন,  ‘এটা হওয়ার কারণ আমি নিজেই। কারণ আমার কাছে তখন মনে হতো আমি তখন শুধু এ ধরনের গানই করব। গত ১৮ মাসে আমার অনেক কিছুই মনে হত। যখন আস্তে আস্তে আমার টাইম শেষ হয়েছে তখন মনে হয়েছে ধর্ম-কর্ম দুটিকেই যদি একসঙ্গে আকড়ে না ধরি তাহলে কিছুই হবে না।’ 

এমন কী আপনি আর গান গাইবেন না বলেও কথা উঠেছিল। রুমি বলেন, 'আসলে ১৮ মাসের জার্নিতে গান থেকে অনেক দূরেই ছিলাম। এটা হওয়ার কারণ আছে। যখন আমি এবাদত করতাম শীতের সময়ে, গাছ থেকে পাতা পড়ে গেছে, শুধু ডালগুলো আছে। ওই টাইমে আমিও গান থকে বেশ দূরে। তখন আমার মনে হয়েছে, ভালোই আছি। আমি আর গান গাইব না। সবাইকে জানিয়ে দেই। তাহলে আমাকে কেউ আর বিরক্ত করবে না। আস্তে আস্তে আমার মনটা শান্ত হয়েছে। যখন গাছের পাতা উঠল তখন আমার মনে হয়েছে, আমি আবার জেগে উঠি। আগে আমার গানের কাজটি এগিয়ে রাখতাম। এখন ধর্মটাকেই প্রধান্য দিচ্ছি। আমার কাছে মনে হয় এটা আমার একটা সফর ছিল। ওই সফরের মাঝখানে আমি সিদ্ধান্ত নিতে পারছিলাম না, কোনটা করা উচিত আর কোনটা করা উচিত না। ১৮ মাসের সফর শেষ। অনেক কিছু শেখার মাধ্যমে সফরটা শেষ হলো। এবার আমি প্রস্তুত; নিজেকে চিনে নিজেকে জেনে নতুনভাবে হাঁটার জন্য।'  

আরও পড়ুন

খালেদা জিয়ার প্রার্থিতা নিয়ে রিট শুনানি তৃতীয় বেঞ্চে

খালেদা জিয়ার প্রার্থিতা নিয়ে রিট শুনানি তৃতীয় বেঞ্চে

আসন্ন নির্বাচনে তিন আসনে বিএনপি চেয়ারপারসন কারাবন্দি খালেদা জিয়ার প্রার্থিতা ...

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে যান চলাচলে ডিএমপির নির্দেশনা

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে যান চলাচলে ডিএমপির নির্দেশনা

আগামী ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী এবং ...

আ.লীগের মতো উন্নয়ন কেউ করেনি: নাসিম

আ.লীগের মতো উন্নয়ন কেউ করেনি: নাসিম

আওয়ামী লীগ সরকারের সময় যে উন্নয়ন হয়েছে তা অতীতের কোন ...

'স্লগ ওভারে বোলিংয়ে উন্নতি দরকার'

'স্লগ ওভারে বোলিংয়ে উন্নতি দরকার'

গেল জুলাইয়ের কথা। ওয়ানডে সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ...

এফডিসিতে হবে আধুনিক মসজিদ

এফডিসিতে হবে আধুনিক মসজিদ

২ কোটি ৯ লক্ষ টাকা ব্যায়ে চলচ্চিত্রপাড়া খ্যাত এফডিসিতে নির্মিত ...

প্রার্থী বৈধ অস্ত্র সঙ্গে রাখতে পারবেন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রার্থী বৈধ অস্ত্র সঙ্গে রাখতে পারবেন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে আত্মরক্ষার জন্য প্রার্থীর যে ...

চ্যাম্পিয়নস লিগে ১৫ দল শেষ ষোলোয়

চ্যাম্পিয়নস লিগে ১৫ দল শেষ ষোলোয়

চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপ পর্বের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ শেষ হয়েছে মঙ্গলবার রাতে। ...

আবারও ক্ষমতায় আসতে পারে আ. লীগ: ইআইইউ

আবারও ক্ষমতায় আসতে পারে আ. লীগ: ইআইইউ

আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে সংসদের বেশিরভাগ আসনে বিজয়ী হয়ে আবারও রাষ্ট্রক্ষমতায় ...