‌‌'দুর্ভাগ্য, সালমান ছবিটি দেখে যেতে পারেনি'

প্রকাশ: ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮     আপডেট: ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

অনলাইন ডেস্ক

বড় পর্দায় সালমান শাহর মাত্র তিন-চার বছরের ক্যারিয়ার। করেছেন মাত্র ২৭টি ছবি। অথচ প্রদর্শকদের দেওয়া তথ্য বলছে, বাংলাদেশে এ পর্যন্ত ব্যবসাসফল ১০টি ছবির মধ্যে ৩টিই সালমানের।

বাংলাদেশে সবচেয়ে ব্যবসাসফল ছবি 'বেদের মেয়ে জোসনা'। সারাদেশে ১ হাজার ২০০ প্রেক্ষাগৃহে চলা এই ছবি ২০ কোটি টাকা আয়ের মাইলফলক ছুঁয়েছিল। এরপর দ্বিতীয় অবস্থানে আছে সালমান শাহ অভিনীত 'স্বপ্নের ঠিকানা' ছবিটি। আয় করেছিল ১৯ কোটি টাকা। তৃতীয় অবস্থানেও আছে সালমানের 'সত্যের মৃত্যু নেই' ছবিটি। আয় করে ১১ কোটি ৫০ লাখ টাকা।

সালমান অভিনীত প্রথম ছবি 'কেয়ামত থেকে কেয়ামত' আছে ব্যবসাসফল ছবির চতুর্থ স্থানে, আয় করে ৮ কোটি ২০ লাখ টাকা। 

সালমান শাহর উচ্চতা বলতে তেমন কিছু ছিল না, মাত্র ৫ ফুট ৮। সুঠাম দেহের নায়ক ছিলেন না তিনি। কেয়ামত থেকে কেয়ামত দেখে অনেকে ভেবেছিলেন পর্দায় সুন্দরী নায়িকাদের সঙ্গে প্রেম আর নাচানাচি করাতেই সীমিত থাকবে এই তরুণ। কিন্তু না, জমিদারপূত্র থেকে শুরু করে রাখাল বালক- সব চরিত্রেই কাজ করেছেন সালমান। আর খ্যাতির কথা তো সবারই জানা। 

তাকে নিয়ে 'সত্যের মৃত্যু নেই' ছবি নির্মাণ করেন ছটকু আহমেদ। স্বপ্নের নায়কের ২২তম মৃত্যুবার্ষিকীতে জানালেন তাকে নিয়ে নানা স্মৃতিকথা। 

ছটকু আহমেদ

সালমান শাহকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করে ছটকু আহমেদ সমকাল অনলাইনকে বলেন, ‘সত্যের মৃত্যু নেই’ ছবিতে প্রথম মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করেন শাবানা। আর তা সম্ভব হয়েছিল সালমান শাহ এই ছবির নায়ক বলে। ১৯৯৫ সাল। নায়িকা হিসেবে শাবানার ক্যারিয়ার তখন রমরমা। ঠিক ওই সময়ে মায়ের চরিত্রে অভিনয়ের প্রস্তাব নিয়ে গেলাম তার কাছে। তিনি বেঁকে বসলেন। তখন নায়িকা হিসেবে শাবানার প্রতিটি ছবিই সুপারহিট। শাবানাকে বললাম তুমি গল্প শোন, পছন্দ না হলে করো না। একপর্যায়ে মহাখুশিতে রাজি হয়ে গেলেন শাবানা। ওয়াহিদ সাদিক বললেন, তুমি ওকে জাদু করেছ, নাহলে কীভাবে মা হতে রাজি হলো! চরিত্রটি ছিল ভাইটাল আর সালমানের মা হবেন জেনে সানন্দে রাজি হয়ে গেলেন শাবানা। সালমানকে আসলে সবাই খুব ভালোবাসতেন। সালমান শাহও শাবানাকে মা হিসেবে পেয়ে খুব খুশি। দুর্ভাগ্য, সালমান ছবিটি দেখে যেতে পারেনি। ১৯৯৬ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর মুক্তি পায় ‘সত্যের মৃত্যু নেই’। এর ঠিক এক সপ্তাহ আগে অর্থাৎ ৬ সেপ্টেম্বর মারা যান সালমান।'