'চ্যালেঞ্জ নিয়েই প্রযোজনায় এসেছি'

প্রকাশ: ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯       প্রিন্ট সংস্করণ     

অনলাইন ডেস্ক

হাবিব ওয়াহিদ

হাবিব ওয়াহিদ। তারকা কণ্ঠশিল্পী ও সঙ্গীত পরিচালক। সম্প্রতি তার সুর ও সঙ্গীত পরিচালনায় প্রকাশিত হয়েছে কণ্ঠশিল্পী পড়শীর একক গান 'আবাহন'। এর পাশাপাশি প্রকাশিত তার একক গানগুলো নিয়ে দর্শক-শ্রোতার প্রতিক্রিয়া, বর্তমান ব্যস্ততা ও অন্যান্য প্রসঙ্গে কথা হয় তার সঙ্গে।

আপনার এইচডব্লিউ ইউটিউব চ্যানেলে এই প্রথম অন্য কোনো শিল্পীর গান প্রকাশ করলেন। পড়শীর গাওয়া 'আবাহন' গানটি নিজের সুর করা বলেই এই সিদ্ধান্ত?

অনেকটা তাই। পড়শীর গাওয়া 'আবাহন' গানটির সুর ও সঙ্গীতায়োজন আমার বলেই শুধু নয়, এই গানটি আমার ভিন্ন ধরনের কাজের অংশ। যেজন্য নিজের ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশ করা। এমন নয় যে, এই চ্যানেলে শুধু নিজের গাওয়া গানগুলোই প্রকাশ করব। আমার সুর কিংবা কম্পোজিশন করা অন্য শিল্পীর গানও প্রকাশ করতে পারি। অনেকদিন ধরে এমন একটি প্ল্যাটফর্মের কথা ভেবেছি, যেখানে নিজের সৃষ্টি আলাদা করে তুলে ধরতে পারব। এইচডব্লিউ ইউটিউব চ্যানেল তেমনই একটি প্ল্যাটফর্ম যেখানে আমার সৃষ্টিকর্ম স্থান পাবে। ভবিষ্যতে ভক্তরা যাতে নিশ্চিত হতে পারেন, এইচডব্লিউ চ্যানেলে হাবিব ওয়াহিদের যত নতুন গান আছে তা শোনা যাবে। তবে নিজের চ্যানেলের বাইরে অন্য কোনো প্রকাশকের জন্য গান করব না- সেটা ভাবলে ভুল হবে। যে কাজগুলো একান্ত নিজের মতো করে তৈরি করতে পারব, সেগুলো নিজের চ্যানেলে প্রকাশ করব।

পড়শীর 'আবাহন' গানটির পাশাপাশি আপনার গাওয়া গানগুলো নিয়ে কেমন সাড়া পাচ্ছেন?

'অবুঝপনা' গানটি দিয়ে এইচডব্লিউ চ্যানেলটি উদ্বোধন করেছি। প্রথম গান থেকেই বিপুল সাড়া পাব- এমন প্রত্যাশা ছিল না। তার পরও এই গানের ভিডিও দেখে অনেকে প্রশংসা করেছেন। এরপর 'নদী', 'আনমনা মন' ও 'তোর মায়ঘরে' গানগুলো প্রকাশ করা হয়। এই গানগুলোর ভিডিও অনেকে দেখছেন, তাদের ভালো লাগার কথা জানিয়েছেন। তবে এখন সবচেয়ে বেশি সাড়া পাচ্ছি পড়শীর 'আবাহন' গানটি নিয়ে। মাত্র ক'দিন আগে গানটি প্রকাশ করা হয়েছে। সামনের দিনগুলোয় হয়তো আরও সাড়া পাব। 

ইউটিউব চ্যানেল গানের প্রযোজনা ও প্রকাশনার জন্য কতটা সম্ভাবনাময় বলে মনে করেন? 

ইউটিউব চ্যানেল থেকে আয় করা সহজ নয়। একেকটি মিউজিক ভিডিও নির্মাণ করতে যে পরিমাণ অর্থ ব্যয় হয়, তা তুলে আনাই কঠিন। কোটি ভিউ হলে কিছু টাকা পাওয়া যায়। কিন্তু কয়টি গানের দর্শকসংখ্যা কোটির ঘরে পৌঁছাচ্ছে সেটাও দেখার বিষয়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের শিল্পী ও সঙ্গীত পরিচালকরা নিজেদের চ্যানেল তৈরি করে গান প্রকাশ করে সাফল্যের দেখা পেয়েছেন। কিন্তু এ দেশে এখনও সেভাবে বাণিজ্যিক সাফল্য ধরা দেয়নি। তবে সম্ভাবনা যে একেবারে নেই, তা নয়। ভবিষ্যতে হয়তো প্রেক্ষাপট বদলাবে। আমরা যারা গানের প্রযোজনা প্রকাশনার সঙ্গে জড়িত, তারা হয়তো সাফল্যের দেখা পাব। 

অনলাইন বা ইউটিউবে গান প্রকাশ করে লগ্নি উঠিয়ে আনা কঠিন জেনেও প্রযোজনায় আসার কারণ কী?

ইউটিউব বা অনলাইনের গানের প্রকাশনা বিষয়টি এখনও প্রাথমিক স্তরে রয়েছে। তবে সম্ভাবনা আছে বলেই অনেকে গান বা অ্যালবাম প্রযোজনা ও প্রকাশনায় ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। আমি চাই নিজের সৃষ্টিকর্ম তুলে ধরার পাশাপাশি আমার চ্যানেলে সম্ভাবনাময় কিছু শিল্পীকে পরিচয় করিয়ে দিতে। কাজটা চ্যালেঞ্জিং। তার পরও চ্যালেঞ্জ নিয়েই প্রযোজনায় এসেছি। এ বিষয়ে আমাকে সাহস জোগানোর পাশাপাশি ও সবরকম সহযোগিতা করছেন আমার বাবা ফেরদৌস ওয়াহিদ। 

ভালোবাসা দিবসে কোনো নতুন গান প্রকাশের পরিকল্পনা আছে?

'আলিঙ্গন' শিরোনামের একটি ভালোবাসার গান রেকর্ড করেছি। রাতিন মীরের লেখা এই গানের ভিডিও তৈরির পরিকল্পনাও শেষ। ভিডিওতে দারুণ একটি রোমান্টিক গল্প থাকবে। গানটি প্রকাশ করব ১৩ ফেব্রুয়ারি।

বিষয় : হাবিব ওয়াহিদ বিনোদন