‘এখনও নিজেকে নতুনই ভাবি’

প্রকাশ: ০৪ এপ্রিল ২০১৯     আপডেট: ০৪ এপ্রিল ২০১৯       প্রিন্ট সংস্করণ     

এমদাদুল হক মিলটন

চিত্রনায়ক ফেরদৌস

'চলচ্চিত্রে আসা, অভিনয় করা- এটা আমার কাছে এখনও রূপকথার গল্পের মতো। কখন যে দুই দশক পেরুলাম টেরই পাইনি! এখনও নিজেকে নতুনই ভাবি। অভিনয়ের মাধ্যমে মানুষের ভালোবাসাই বেশি পেয়েছি, যা কাজের প্রতি আমার আগ্রহ বাড়িয়ে দিয়েছে। এখন মনে হয়, আরও দায়িত্ব নিয়ে কাজ করা উচিত।' এক নিঃশ্বাসে এভাবেই কথাগুলো বললেন অভিনেতা ফেরদৌস। 'বুকের ভেতর আগুন' থেকে 'লিডার'- মাঝে অসংখ্য ছবি দিয়ে দর্শকের হৃদয় জয় করেছেন ফেরদৌস। দীর্ঘ পথচলা কেমন ছিল? জানতে চাইলে তিনি বলেন, ''দুই দশক আগে মুক্তি পেয়েছিল আমার অভিনীত চলচ্চিত্র 'হঠাৎ বৃষ্টি'। অভিনয় জীবন শুরু মূলত বাসু চ্যাটার্জি পরিচালিত এই ছবির মাধ্যমে। ছবিটি শুরুতে টেলিভিশনে প্রচার হয়েছিল। তারপর মুক্তি পেয়েছিল প্রেক্ষাগৃহে। এই ছবি দিয়ে এতটা সাড়া পাব ভাবিনি। আমি যদি আমার ক্যারিয়ারের টার্নিং পয়েন্টের কথা বলি, তাহলে হঠাৎ বৃষ্টির কথা বলতে হবে। মানুষ এখনও হঠাৎ বৃষ্টির 'অজিত'কেই খুঁজে বেড়ায়।" 

দুই দশক ধরে বিরতিহীনভাবে অভিনয়ের উঠানে হাঁটছেন ফেরদৌস। দুই বাংলায় তার জনপ্রিয়তা আকাশচুম্বী। পেয়েছেন চারবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। 'খাইরুন সুন্দরী', 'প্রেমের জ্বালা', 'চুড়িওয়ালা', 'ব্যাচেলর', 'কুসুম কুসুম প্রেম', 'গঙ্গাযাত্রা', 'এক কাপ চা'-সহ অনেক দর্শকপ্রিয় ছবিতে সুঅভিনয় করে নিজের জাত চিনিয়েছেন এই অভিনেতা। ফেরদৌস বর্তমানে 'কাঠগড়ায় শরৎচন্দ্র', 'যদি আরেকটু সময় পেতাম', 'চট্টলা এক্সপ্রেস', 'জ্যাম', 'গাঙচিল' চলচ্চিত্রে অভিনয় করছেন। 'জ্যাম' ছবির কাজ প্রায় শেষ। এতে তাকে দেখ যাবে বিদেশফেরত এক যুবকের চরিত্রে। আর মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে মাহমুদ দিদারের পরিচালনায় 'বিউটি সার্কাস'। এতে তার সহশিল্পী জয়া আহসান। ফেরদৌস বলেন, ভিন্ন ধারার গল্পের ছবি 'বিউটি সার্কাস'। একটি এলাকার জমিদারের চরিত্রে আমাকে দেখা যাবে। সেই জমিদার যা চায় তাই পায়। ভাবে বিউটি সার্কাসের মেয়ে। তাকে পাওয়া খুব সহজ। কিন্তু এক পর্যায়ে বিউটিকে সে আবিস্কার করে নতুনভাবে।'

ফেরদৌস

এ ছাড়া ফেরদৌস সম্পতি আমিরুল ইসলাম শোভার পরিচালনায় 'সেভ লাইভ' ছবিতে চ্যালেঞ্জিং একটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন। তিনি বলেন, পেশাদারি জীবন নিয়ে নির্মিত যে কোনো ছবিতে অভিনয়ের বেশ সুযোগ থাকে। তেমনি এক ছবি 'সেফ লাইফ'। এ ধরনের চরিত্র নিয়ে আমাদের দেশে ছবি হয়েছে হাতেগোনা। যে মানুষগুলো নিজের জীবন বিপন্ন করে আমাদের জীবন বাঁচায় তাদের জীবনযাপনের গল্প আমরা কতটা জানি? 

এই দীর্ঘ সময়ে পেছন ফিরে তাকালে কী দেখতে পান? এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ইচ্ছা ছিল অল্প কাজ করব। অভিনয়কে পেশা হিসেবে নেব ভাবিনি। এখনও স্বপ্ন মনে হয়। এই তো সেদিনের কথা। প্রথম ছবির শুটিং! সব স্মৃতিই আমার মনে এখনও জ্বল জ্বল করছে। অনেক পেয়েছি। তাতেই আমি খুশি। ক্যারিয়ারে কিছু ভুল হয়তো ছিল। সেগুলো তখন ভুল মনে হয়নি, এখন মনে হচ্ছে। আমার সহশিল্পীরা বেশ সহযোগিতাপরায়ণ। দুই বাংলার মানুষ আমাকে পছন্দ করেন। নামিদামি ও নবীন নির্মাতাদের সঙ্গে অনেক কাজ করেছি। প্রত্যেকের কাছ থেকেই কিছু না কিছু শিখেছি, যা আমাকে আগামীর পথে চলতে সহায়তা করবে। 

বিষয় : ফেরদৌস চিত্রনায়ক বিনোদন