লোকসানেও ভারতীয় আমদানি ছবিই ভরসা!

প্রকাশ: ১২ জুলাই ২০১৯     আপডেট: ১২ জুলাই ২০১৯      

অনিন্দ্য মামুন

জিৎ ও কোয়েল মল্লিক অভিনীত ‘শেষ থেকে শুরু’ ছবিটি বাংলাদেশে মু্ক্তির অপেক্ষায় আছে

জুলাই মাস শুরু হয় দেশীয় ছবি ‘আব্বাস’ মুক্তির মধ্য দিয়ে। সাইফ চন্দন পরিচালিত ছবিটিতে নায়ক হিসেবে আছেন নিরব।মাসের প্রথম সপ্তাহ চলার পরই এ মাসে শুরু হয় ভারতীয় আমদানি ছবির দাপট। আজ মুক্তি পেলো  দেব-রুক্সিনী জুটির ছবি ‘কিডন্যাপ’। ভারত থেকে আমদানি করে আনা ছবি এটি। মুক্তি পেলো অর্ধশতাধিক হলে। আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান শাপলা মিডিয়া কলকাতার সুরিন্দর ফিল্মসের কাছ থেকে এই ছবি আমদানি করেছে। বিনিময়ে সেখানে রপ্তানি করা হয়েছে শাপলা মিডিয়ার ‘প্রেম চোর’ ছবিটি।

তার আগে গত ২৮ জুন মুক্তি পায় কলকাতার ছবি ভোকাট্টা। রমেশ রাট পরিচালিত এ ছবিতে কলকাতার ওম সাহানির বিপরীতে অভিনয় করেছেন উড়িষ্যার নায়িকা এলিনা। এ ছবিটিও আমদানি করে আনে শাপলা মিডিয়া। ‘ভোকাট্টা’ ছবির বিনিময়ে কলকাতায় রপ্তানি করা হয় বাংলাদেশের ‘বয়ফ্রেন্ড’। 

কলকাতার জিৎ ও কোয়েল মল্লিক জুটির নতুন ছবি ‘শেষ থেকে শুরু’। শাপলা মিডিয়ার আমদানি করে আনা ছবিটি বাংলাদেশে মুক্তির কথা ১৯ জুলাই।ইতোমধ্যে ছবিটি মুক্তির সকল প্রক্রিয়া শেষ বলে জানিয়েছেন আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান শাপলা মিডিয়ার কর্ণধার সেলিম খান। 

চলতি মাসের শেষের দিকে বাংলাদেশের নুসরাত ফারিয়া ও কলকাতার অঙ্কুশ অভিনীত বিবাহ অভিযান ছবিটিও মুক্তির নিশ্চয়তা পাওয়া গেছে। বিরসা দাশগুপ্ত পরিচালিত ভারতীয় এ ছবিটি বাংলাদেশে মুক্তি পাবে ২৬ জুলাই। ছবিটির আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান তিতাস কথাচিত্র। ছবিটি ডিস্ট্রিবিউশন করবে প্রাইম প্রডাকশন নামের একটি প্রতিষ্ঠান।

জুলাই মাস পুরোটাই ভারত থেকে আমদানি করা ছবিতেই সরব থাকবে বাংলাদেশর হলগুলো। অন্যদিকে বেশি ছবির আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান শাপল মিডিয়ার প্রযোজিত দেশীয় ছবির মুক্তির খবর নেই কোন। শাকিব খান-নুসরাত ফারিয়া ও রোদেলা জান্নাতকে নিয়ে নির্মিত ‘শাহেনশাহ’ ছবিটি মুক্তি দিচ্ছি দিচ্চি করেও দিচ্ছে না। ‘প্রেম চোর’ ছবিটিও কবে মুক্তি পাবে নিশ্চিত করে জানাতে পারছে না প্রতিষ্ঠানটি। 

আমাদানী করা ছবি অতীত খুব একটা সুখকর নয়। বিশেষ করে সাম্প্রতিক সময়ের আমদানি করা কোন ছবিই ব্যবসা এনে দিতে পারেনি। টানতে পারেনি দর্শক।তবে হল মালিকরা বলছেন, দেশের কোন মানসম্পন্য ছবি নেই। ফলে তাই আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পরও আমদানি করা ছবিতেই ভরসা করতে হচ্ছে তাদের। এগুলো না হলে হল চালু রাখবো কী দিয়ে? প্রশ্ন হল মালিকদের।